শিবগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধা তালিকা ভুক্ত হতে চান আবু বক্কর সিদ্দিক

বগুড়ার শিবগঞ্জে স্বাধীনতার ৫২ বছর পর মুক্তিযোদ্ধা তালিকা ভুক্ত হওয়ায় জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর আবেদন। গত ২৭ নভেম্বর আবেদন করেন আবু বক্কর সিদ্দিক নামে এক বৃদ্ধ। তিনি উপজেলার মাঝিহট্ট ইউনিয়নের সৈয়দ দামগাড়া মিয়াপাড়া গ্রামের  স্থায়ী বাসিন্দা। 
আবু বক্কর সিদ্দিক জানান,  মুক্তিযোদ্ধার সময় তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিববুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ ই মার্চ ভাষনে অনুপ্রাণিত হয়ে  মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেই। ভারতের ত্রিমোহনী কামারপাড়ায় যান এবং সেখানে প্রশিক্ষণ নিয়ে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পরেন। অকুতভয় এই যুদ্ধা দেশ স্বাধীন হওয়ার পর বাড়িতে চলে আসেন। তার কাছে স্মৃতি হিসাবে রয়ে যায় বাংলা মুক্তি সেনা নামে পরিচয়পত্র। 
স্বাধীনতার ৫২ বছর পার হলেও তিনি মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে তালিকা ভুক্ত হতে পারেননি। কারণ তাঁর পরিচয়পত্রটি বাড়িতে একটি পুরাতন বাক্সের ভিতরে বদ্ধ ছিলো। 
তিনি জানান, তার বয়স বৃদ্ধি হওয়ার কারণে এবং স্মৃতিশক্তি লোপ পাওয়ায় কোথায় তাঁর পরিচয়পত্র রয়েছে তা তিনি মনে রাখতে পারেননি।  স্বাধীনতার ৫২ বছরে  তিনি পুরাতন কাজগপত্র খুঁজতে গিয়ে পেয়ে যান আলাউদ্দিনের আশ্চার্য প্রদীপ এর মত তাঁর হারিয়ে যাওয়া মুক্তিসেনা নামে পরিচয়পত্রটি। তিনি তার সহযোদ্ধাদের সহযোগিতায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে তালিকা ভুক্তির জন্য আবেদন করেন। 
সাবেক উপজেলা বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল বারী মন্ডল বলেন, আবু বক্কর সিদ্দিক দেশের অভ্যন্তরে  প্রশিক্ষণ নিয়ে মুক্তিযুদ্ধ করেছেন। তাকে মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে তালিকা ভুক্ত করা প্রয়োজন এবং আমরা তাকে সহযোগিতা করবো।  
এব্যাপারে শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহমিনা আক্তার মুঠোফোনে বলেন, এ সংক্রান্ত একটি আবেদন পেয়েছি। আবেদনকারীকে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে আবেদন করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে। 
 

বিজ্ঞাপন