এক দিনের ব্যবধানে পিঁয়াজের বাজার আকাশ ছোঁয়া

দিনাজপুরের ১৩টি উপজেলায় এক দিনের ব্যাবধানে পিঁয়াজের বাজার আকাশ ছোঁয়া। গতকাল শুক্রবার ভারত পিঁয়াজের রপ্তানি বন্ধের ঘোষনা করলে বাংলা হিলি হাকিমপুর স্থলবন্দরের আমদানিকারকেরা পাইকারী ও খুচরা ব্যবসায়ীদের কাছে পিঁয়াজ সরবরাহ বন্ধ করলে পিঁয়াজের দাম হঠাৎ বেড়ে যায় বলে অভিযোগ করছেন ব্যাসায়ীরা। ফুলবাড়ী পৌরসভার পাইকারী পিঁয়াজ ব্যবসায়ী মিনু, মেহের, আব্দুল জলিল সহ একাধীক পিঁয়াজ ব্যবসায়ীর সাথে কথা বলে জানা যায়, গত শুক্রবার ভারত পিঁয়াজের রপ্তানি বন্ধের ঘোষনা করলে আমরা আমদানীকারদের কাছে থেকে সল্প পরিমান পিঁয়াজ আনতে পেরেছি এবং গত কালকের তুলনায় দাম দ্বিগুন। বর্তমান ৯০-১০০টাকার পিঁয়াজ পাইকারী বিক্রি হচ্ছে প্রকার ভেদে ১৫০-২০০টাকা। খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ২০০-২৫০টাকা প্রতি কেজি। হঠাৎ পিঁয়াজের দাম বৃদ্ধিতে বিপাকে পড়েছে খেটে খাওয়া নি¤œ আয়ের মানুষেরা। এদিকে আলুর দাম ৩৬ টাকা প্রতি কেজি বেঁধে দিলেও বিক্রি হচ্ছে ৪৮-৫০টাকা, সরকারী নির্দেশ মানছেনা পাইকারী ও খুচরা ব্যবসায়ীরা। নতুন আলু বাজারে আসলেও কমছেনা আলুর দাম। নি¤œ আয়ের মানুষেরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। সেই সাথে আবারও বাড়ছে চাউল এর দাম। কী ভাবে চলবে সাধাণ মানুষ? 
এ ব্যপারে ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর মোঃ আল কামাহ্ তমাল জানান, পিঁয়াজের দাম বৃদ্ধি খবর পেয়ে বাজার মনিটরিং করার জন্য উপজেলা প্রশাসন বর্তমান বাজারে অবস্থান করছে। হঠাৎ পিঁয়াজের দাম বৃদ্ধির বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আশাকরি ভ্রামমান আদালত পরিচালনার মাধ্যমে বাজার নিয়ন্ত্রন করা হবে। 
 

বিজ্ঞাপন