কাজিপুরে প্রতিবন্ধীদের বন্ধু স্বপনের স্বপ্ন এগিয়ে যাচ্ছে

৩২

টি এম কামাল, কাজিপুর প্রতিনিধি ॥ সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার দুর্গম চরাঞ্চলের প্রতিবন্ধীদের পরম বন্ধু স্বপনের স্বপ্ন একটু একটু করে সামনের দিকে এগিয়ে চলেছে। এক দুই করতে করতে এখন তিনি প্রতিবন্ধীদের অধিকার আদায়ে গড়ে তুলেছেন একটি সেবামূলক সংগঠন। নাম যমুনা প্রতিবন্ধী কল্যাণ সংস্থা। নানা পালা পার্বণে সবাই যখন নিজেদের নিয়ে আনন্দে ব্যস্ত সময় কাটায় তখন স্বপন ছুটে যান নিজের সামর্থ্যের সবটুকু নিয়ে প্রতিবন্ধীদের বাড়ি বাড়ি।

চরাঞ্চলের সহ¯্র নানা ধরণের প্রতিবন্ধীদের মাঝে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে নিজের বাবার সামান্য জমিটুকুও তিনি একটি বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার কাজে লাগিয়েছেন। নিজে কোন পেশা গ্রহণ না করে দিনরাত প্রতিবন্ধীদের সহায়তা দিতে ছুটে চলেন নানা দানশীর ব্যক্তির নিকট। তাদের দেয়া দান আর উপজেলা পরিষদের সহায়তার সবটুকু তিনি নানা সময়ে বিলিয়ে দেন প্রতিবন্ধীদের মাঝে।

সরেজমিন তার প্রতিষ্ঠানে দিয়ে কথা হয় স্বপনের সাথে। তিনি জানান, এমন কোন দিন নেই যেদিন কোন না কোন প্রতিবন্ধী আমার বাড়িতে আসেনি। ওরা যখন আমার নিকট আসে আর আমি ওদের জন্যে কিছু করতে না পারি সেদিন আমার প্রচন্ড কষ্ট হয়। সমাজের অনেকেই এ নিয়ে আমাকে নানা কথা শোনায়। কিন্তু সেসবে আমি কান দেই না। আবার অনেকে আগ্রহ ভরে আমার কাজে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেন। কথার এক পর্যায়ে সাংবাদিক এসেছে জানতে পেরে ছুটে আসে অর্ধশত প্রতিবন্ধী। তাদের অনেকে আবার বাবা-মায়ের কোলে চড়ে এসেছে। এসময় স্বপ্না নাদের এক বাক প্রতিবন্ধীর মা আমেনা বেগম জানান, আমাগোরে দেহার কেউ নাই। এই স্বপনই আমাগোরে কাপড়, ডাল-চাল, টেহা, ওষুধ দেয়। দশ বছরের শারীরিক প্রতিবন্ধী রফিকুলতো তার দাদীর কোল থেকে নেমে সোজা স্বপনের কোলে এসে বসে পড়ে। তখন তার চোখের কি পরম আনন্দ! স্বপন সবাইকে বিস্কুট এনে আপ্যায়ণ করেন।

স্বপন জানান, এখন আমার একটিই স্বপ্ন প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়টির স্বীকৃতি ও প্রতিষ্ঠায় বিত্তবানদের একটু সহায়তা। তিনি জানান, নাটুয়ারপাড়া এলাকার আশপাশের প্রায় সাতশত প্রতিবন্ধীকে শীতের কাপড় ও নগদ সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। সহযোগিতা দিয়েছেন কাজিপুর উপজেলা পরিষদ, ভয়েজ অব কাজিপুর, স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপ ও সমাজের বিত্তবানগণ অনেকেই। আমি তাদের নিকট চিরকৃতঞ্জ। এসময় তিনি ভয়েজ অব কাজিপুরের উপদেষ্টা প্রকৌশলী সাখাওয়াত হোসেন, কাজিপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান সিরাজী, স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপের কর্ণধার আলহ্জা ইঞ্জিনিয়ার একেএম মোশাররফ হোসেন, বসুন্ধরা গ্রুপের এজিএম স্টেট আমিনুল ইসলাম, ভয়েজ অব কাজিপুর-এর সভাপতি ডাঃ আশকার পাইন সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

সংস্থার উপদেষ্টা সাহিনা সুলতানা জানান, সমাজের সুবিধাবঞ্চিত প্রতিবন্ধীদের নিয়ে কাজ করতে এখন আর খারাপ লাগে না। অনেক অনেক ভালোলাগা থেকে তাদের জন্যে কাজ করছি। তিনি প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়টির অবকাঠামোসহ অন্যান্য সুবিধা দেবার জন্যে বিত্তবানদের সহায়তা কামনা করেন।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.