সিলেট-ছাতক ট্রেন ৯মাস যাবত বন্ধ,যাত্রীদের চরম ভোগান্তি

৩২

হাওরাঞ্চল প্রতিনিধি,সুনামগঞ্জ:
বাংলাদেশের হাওরাঞ্চল হিসেবে পরিচিত সুনামগঞ্জ জেলা। এজেলার বেশির ভাগ মানুষ দরিদ্র। তাই ইচ্ছে থাকলেও অনেক কিছুর চাহিদাই পূরণ করতে পারেনা এজেলার ক্ষুদ্র আয়ের মানুষগুলো। এজেলার শিল্প নগরী হিসেবে পরিচিত ছাতক উপজেলা। তাই দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে খেটে খাওয়া মানুষ এখানে আসে তাদের জীবিকা নির্বাহের তাগিদে। আর ক্ষুদ্র আয়ের মানুষগুলোর যাতায়াতের একমাত্র যোগাযোগ মাধ্যম হচ্ছে ট্রেন। কিন্তু দীর্ঘ ৯মাস যাবত ছাতক-সিলেট রেলপথে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। এর ফলে রেলপথে যাতায়াতকারী ক্ষুদ্র ও মধ্যবিত্ত শ্রেণীর ব্যবসায়ীরাসহ লক্ষলক্ষ যাত্রীরা পড়েছেন চরম ভোগান্তিতে।

এব্যাপারে খোঁজ নিয়ে জানা যায়- সুনামগঞ্জ জেলার শিল্প নগরী হিসেবে পরিচতি ছাতক উপজেলা। কারণ বৃটিশ আমল থেকেই ব্যবসা-বাণিজের জন্য বিখ্যাত ছাতক। কিন্তু জেলা ও বিভাগীয় শহরসহ রাজধানী শহর ঢাকার সাথে সড়ক পথে যোগাযোগের সুব্যবস্থা ছিলনা। তখন নদী পথে বেশির ভাগ মালামাল পরিবহণ করা হতো। তাতে দীর্ঘ সময় নষ্ট হওয়ার পাশাপাশি প্রায়ই নৌকা ডুবে ঘটতো প্রাণহানীর ঘটনা। আর এই সমস্যা নিরসনের জন্য জেলার শিল্প নগরী ছাতক উপজেলায় ১৯৫৪ সালে তৎকালীন সরকার নির্মান করেন ৩৫ কিলোমিটার রেলপথ। এবং ছাতক বাজারে তৈরি করা হয় রেল স্টেশন। ওই সময় বিভিন্ন মালামাল পরিবহণের জন্য চালু করা হয় ৪টি মালবাহী ট্রেন। তারপর থেকে কম খরছে খুব সহজে নিরাপদে ছাতক থেকে সিমেন্ট,জিপসাম,ভাঙ্গা পাথর,চুনাপাথর ও কমলাসহ বিভিন্ন প্রকার কাঁচামাল ট্রেনের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন জায়গাতে পরিবহণ করা হতো। সেই সময় থেকে সব শ্রেণীর মানুষের কাছে ট্রেন জনপ্রিয় হয়ে উঠে। তবে প্রথম ট্রেন চালু হওয়ার পর সিলেট থেকে ছাতক পর্যন্ত জনপ্রতি ভাড়া ছিল ৪ আনা। আর বর্তমানে সেই ভাড়া ১০টাকা। ট্রেনের মাধ্যমে সিলেট থেকে ছাতক পৌছাতে সময় লাগে ১ঘন্টা ১৫ মিনিট। বাস ও সিএনজির তুলায় ট্রেনে সময় বেশি লাগলেও ভাড়া কম হওয়ার কারণে সাধারণ মানুষের কাছে এখনও বেশি জনপ্রিয় এই ট্রেন। কিন্তু মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে চলতি বছরের ২৩ মার্চ থেকে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। আর কবে ট্রেন চালু হবে তা সঠিক ভাবে বলতে পারছেন না রেলওয়ে কর্মকর্তারা। তাই বিষন মর্মাহত হয়ে পড়েছে ছাতক শিল্প নগরীর লক্ষলক্ষ যাত্রী সাধারণ।

এব্যাপারে ছাতকের ব্যবসায়ী রমিজ উদ্দিন,আজহার আলী,নুর ইসলাম,রহিছ আলীসহ আরো অনেকেই বলেন-কম খরছে নিরাপদে বিভিন্ন মালামাল ট্রেনে পরিবহণ করতে পারতাম। কিন্তু ট্রেন বন্ধ থাকার কারণে বাস ও সিএনজি দিয়ে বেশি টাকা ব্যয় করে মালামাল পরিবহণ করতে হচ্ছে। যার ফলে আমরা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরাসহ দরিদ্র ও মধ্যবিত্ত যাত্রীরা বিষন কষ্টের মধ্যে পড়েছি।

ছাতক পৌরসভার বাসিন্দা আফসার উদ্দিন,বাবুল চৌধুরী,আবুল কালাম ও সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম হিরনসহ আরো অনেকেই বলেন- গণমানুষের যাতায়াতের একমাত্র সহজ মাধ্যম হচ্ছে ট্রেন। তাই সিলেট-ছাতক যাতায়াতের ট্রেন শীগ্রই চালু করার পাশাপাশি রেল লাইনের সংস্কার ও ট্রেনের বগি বৃদ্ধি করাসহ রেল স্টেশন আধুনিকায়ন করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করছি। এব্যাপারে ছাতক বাজার রেল ষ্টেশন মাস্টার আবু নাসের রাসেল বলেন- জেলার শিল্প নগরী ছাতকে ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকার কারণে যাত্রীরা চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন। এই বিষয়ে আমি আমার উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।

বাংলাদেশ রেলওয়ের চট্টগ্রাম পূর্ব অঞ্চলের তত্তাবধায়ক এম সালাহ উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান- মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে দেশের লোকাল ট্রেন বন্ধ রয়েছে। তাই ছাতক-সিলেট পথে ট্রেন আপাদত বন্ধ। তবে পরিবেশ পরিস্থিতি বিবেচনা করে উপরস্থ কর্মকর্তাদের নিদের্শ মোতাবেক পর্যায়ক্রমে লোকাল ট্রেন চালু করা হবে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.