সে প্রতিনিয়ত হুমকি ও ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন: মিলা

জনপ্রিয় পপ তারকা মিলা ইসলাম। অ্যাসিড হামলার মাধ্যমে হত্যাচেষ্টার মামলায় আত্মসমর্পণ করে স্থায়ী জামিন পেয়েছেন কণ্ঠশিল্পী মিলা। বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ঢাকা জেলা ও দায়রা জজ ভারপ্রাপ্ত বিচারক দিলারা আলো চন্দনার আদালতে আত্মসমর্পণ করে আইনজীবীর মাধ্যমে জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে ১০ হাজার টাকার মুচলেকায় মিলার জামিন মঞ্জুর করা হয়। তবে মিলা জানিয়েছেন সানজারি তাকে হুমকি ও ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত। কিন্তু তাই বলে সানজারির বিরুদ্ধে দায়ের করা নির্যাতন ও যৌতুকের মামলা প্রত্যাহার করবেন না তিনি।

মিলা কমকে বলেন, সে (সানজারি) ব্ল্যাকমেইলের চেষ্টা করেই যাচ্ছেন। এমনকি তিন শর্ত মেনে নিলে সে সব মামলা তুলে নেবে বলেও আমাদের জানায়। কিন্তু আমি হেরে যাওয়ার মানুষ নই। আমি সত্যি বিষয় নিয়ে লড়ছি। এই লড়াই শেষ পর্যন্ত চলবে। সেই তিন শর্ত কি? মিলা বলেন, সানজারির পাইলটের চাকুরী চলে গেছে। সে আমাকে শর্ত দিয়েছে তার চাকুরীর অনুরোধ তার এয়ারলাইন্সে করতে। যেটা খুবই হাস্যকর। সে তার সাজা পেয়েছে। আমি কেন তার চাকুরীর জন্য অনুরোধ করতে যাবো!

দ্বিতীয় শর্ত হলো দেন মোহরের ২১ লাখ টাকা যেন আমি না দাবি করি। তৃতীয় শর্ত হলো, এই দুই শর্ত মানলে, সে সব মামলা তুলে নেবে। খুবই হাস্যকর একটি বিষয়। সত্যি বলতে দেন মোহরের টাকার ওপর আমার বিন্দুমাত্র লোভ নেই। তবে আমি আপনাদের মাধ্যমে আমি এও বলতে চাই এই হক আমি ছাড়বো না। যেদিন আমি দেনমোহরের টাকা পাবো সেটা কোথাও না কোথাও দান করে দেবো সঙ্গে সঙ্গে। মিলা যোগ করে বলেন, আমি যেদিন জামিন পাই, সেদিন সানজারি আদালতেই উপস্থিত হয়নি! সে এসিড মারার মামলা করেছে। কিন্তু তার মেডিক্যাল রিপোর্টে লিখা এটা সাধারন ইনজুরি। আমি আমার প্রতিটি কথা যক্তি দিয়ে আদালতে উপস্থাপন করেছি, যার পরিপ্রেক্ষিতে আদালত আমাকে জামিন দেয়।

এবার ভিন্ন প্রসঙ্গে আসি। গানের কি অবস্থা? মিলা বলেন, আমি গানে নিয়মিত হচ্ছিলাম, সেটাই সহ্য করতে পারেনি সানজারি। এ কারণেই এত কিছু। তবে এর আগে আমি ভেঙে পড়েছিলাম মামলার পর। কিন্তু এবার ভেঙে পড়িনি, বিরক্ত হয়েছি এমন মিথ্যাচার ও ব্ল্যাকমেইলে। আমি শ্রোতাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, আমি ‘আইস্যালা’ শিরোনামের যে গানটি করেছি, সেটা নিয়ে আরো বিভিন্ন কাজ হবে সামনে। নতুন গানও আসবে। আমাকে নিয়মিত পাওয়া যাবে গানে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.