শ্বশুর-শ্বাশুড়ির সাথে একত্রে বসবাস করলেই পুত্রবধূকে দেয়া হচ্ছে পুরস্কার

৪৩

মামুন সরকার, টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ ছেলেকে বিয়ে দেয়ার কিছুদিন না যেতেই বউ শ্বাশুড়ির মধ্যে দেখা দেয় দ্বন্দ্ব, শুরু হয় পারিবারিক কলহ। বিশেষ করে বৃদ্ধ ও অসুস্থ শ্বশুর-শ্বাশুড়িকে মেনে নিতে পারেননা অধিকাংশ পুত্রবধূ। স্ত্রীর চাপে আলাদা সংসার করতে বাধ্য হয় ছেলে। এর ফলে বাবা মাকে করতে হয় অসহায় জীবন যাপন, নয়তো বৃদ্ধাশ্রমে নিতে হয় শেষ আশ্রয়। আমাদের সমাজের এমন অবস্থা অনুধাবন করে ব্যতিক্রম এক উদ্যোগ গ্রহন করেছেন টাঙ্গাইল সদর থানার ওসি মোশাররফ হোসেন। শ্বশুর-শ্বাশুড়ির সেবা আর তাদের সাথে একত্রে বসবাস করলেই পুত্রবধূকে দেয়া হচ্ছে পুরুষ্কার। তার এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সমাজের সুশীল সমাজ।

বৃদ্ধাশ্রম নয়, পরিবারই হোক বাবা মায়ের নিরাপদ আবাস, এ কথাটির বাস্তব রূপ দিতেই উদ্যোগটি গ্রহন করেছেন টাঙ্গাইল সদর থানার ওসি মোশাররফ হোসেন। বিষয়টি সকলে অবহিত করতে বিভিন্ন টানানো হয়েছে মোবাইল নম্বর সম্বলিত ব্যানার। শ্বশুর-শ্বাশুড়ির সেবা আর তাদের সাথে একত্রে বসবাস করলেই সদর থানার ওসি পুত্রবধূর হাতে উপহার তুলে দিচ্ছেন। পারিবারিক বন্ধন সুদৃঢ় করতেই তিনি কাজটি শুরু করেছেন। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি পরিবারকে পুরস্কৃতও করা হয়েছে। ওসির উপহার সামগ্রী পেয়ে খুশি পরিবারগুলো। এতে করে উৎসাহিত হচ্ছে অন্যরাও।

ওসির এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সুশীল সমাজের লোকজন। টাঙ্গাইল সদর থানা অফিসার ইনচার্জ মোশাররফ হোসেন বলেন, পারিবারিক বন্ধন সুদৃঢ় করতেই এমন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। বৃদ্ধ বয়সে বাবা মাকে বৃদ্ধাশ্রমে না পাঠায়ে পুত্র ও পুত্রবধূরা তাদের তাদের দেখাশোনা করেন সেটাই আমাদের মূল উদ্দেশ্য।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.