বগুড়ায় ছাত্রীনিবাসে ঝুলছিল তরুনীর লাশ 

আব্দুল ওয়াদুদ : 
বগুড়ার সদরে প্রেমিকের সঙ্গে অভিমান করে জলি খাতুন (২১) নামে স্নাতক (সম্মান) ২য় বর্ষের এক কলেজছাত্রী গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছে।  বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২টার দিকে  লাশ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
জায়ায়ায়,  বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) রাত ১২ টায় কামাড়গাড়ি মুগ্ধ ছাত্রীনিবাস থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে সদর থানা পুলিশ। সে সিরাজগঞ্জ জেলার সলঙ্গা উপজেলায় ও সরকারি আজিজুল হক কলেজে গণিত বিষয়ে পড়াশোনা করতো।
পুলিশ ও ছাত্রীনিবাসে থাকা জলির বান্ধবীরা জানায়, বুধবার সন্ধ্যায় জলিসহ তারা একসাথে আড্ডা দিচ্ছিল। আনুমানিক রাত ৮ টায় জলির মোবাইলে একটি ফোন কল আসলে সে রুমে চলে যায়।
এরপর নাজমুল নামের এক যুবক ওই ছাত্রীনিবাসে থাকা জলির এক আত্মীয়কে মোবাইল করে জানায় “জলি মোবাইল ফোন রিসিভ করছে না”। এরপরে সবাই মিলে জলির রুমে ডাকাডাকি করে কোন ধরণের সারা না পেয়ে তারা ঘরের একটি ইট ভেঙে নিশ্চিত হয় জলি গলায় ফাঁস দিয়েছে। পরে পুলিশ এসে তাকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে। বগুড়া সদর থানার এসআই জহুরুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে আমরা দ্রুত সময়ে ঘটনাস্থলে যাই। তবে গেট ভেঙে আমরা জলিকে মৃত অবস্থাতে পেয়েছি। সে তার ঘরের জানালার সাথে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়েছিল। পরে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল ও হাসপাতালে পাঠানো হয়।
বগুড়া সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবির জানান, প্রাথমিক ভাবে যতটুকু জেনেছি প্রেম ঘটিত বিষয়ে এমন হতে পারে। তিনি আরও জানান, মৃতের  পরিবার থেকে পলিটেকনিকে পড়ুয়া নাজমুল নামের এক ছেলের বিরুদ্ধে মামলা করবে জানিয়েছে। তারা মামলা করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.