গুরুদাসপুরে মজুদ রাখা ৫ হাজার মণ পাট বিক্রি করল অধিদপ্তর

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি.
নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুরে দীর্ঘদিন ধরে অতিরিক্ত পাট মজুদ রাখায় একটি পাটের গুদাম সিলগালা করেছে পাট অধিদপ্তর। পাট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অতিরিক্ত সচিব হোসেন আলী খন্দকার নাজিরপুর বাজারে সোমবার আকস্মিক অভিযান চালিয়ে ভাই ভাই বাণিজ্যালয়ের ৫ হাজার মণ পাট সিলগালা করেন। মজুদকৃত ওই পাট মঙ্গলবার তিনটি পাটকলে বিক্রি করিয়েছেন।

পাট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অতিরিক্ত সচিব বলেন, সম্প্রতি মিলগুলোতে কৃত্রিম পাট সংকট তৈরিসহ অতিরিক্ত মূল্যবৃদ্ধি করে মধ্যস্বত্বভোগীরা যাতে সুবিধা নিতে না পারে সেজন্য এক মাসের বেশি পাট মজুদ না রাখার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। কোনো ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ১শ’ মণের বেশি পাট এক মাসের বেশি মজুদ রাখতে পারবে না। কিন্তু নাজিরপুর বাজারের ওই প্রতিষ্ঠানটি প্রায় ৫ হাজার মন পাট অন্তত ৪ মাস থেকে মজুদ রেখেছিল। বর্তমান বাজার মূল্যে পাট অধিদপ্তরের প্রতিনিধির উপস্থিতিতে এই পাট বিক্রি করা হয়েছে। সকল পাট ব্যবসায়ীদের পাট মজুদ না রাখারও নির্দেশ দেন। নির্দেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে জরিমানাসহ কঠোর শাস্তি দেয়া হবে বলেও জানান অতিরিক্ত সচিব।
অভিযানের সময় পাট অধিদপ্তর নাটোরের মুখ্য পরিদর্শক খন্দকার হাফিজুর রহমান, নাটোর জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফয়সাল রায়হান উপস্থিত ছিলেন।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.