স্বামী বিদেশে, সেই সুযোগে যা করলেন স্ত্রী

স্বামী বিদেশ। সেই সুযোগে পরকীয়ায় জড়িয়ে টাকা-স্বর্ণালংকার নিয়ে পালিয়েছেন প্রেমিকের হাত ধরে। ঘটনার ২০ দিনেও মেলেনি ওই কুয়েত প্রবাসীর স্ত্রীর খোঁজ। পলাতক সুমাইয়া আক্তার কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ থানার বড় চাঁদপুরের জাহাঙ্গীর আলমের মেয়ে। নোয়াখালীর সুধারামের পশ্চিম নরোত্তমপুর গ্রামে চলতি বছরের ২২ জানুয়ারি ভোরে এ ঘটনা ঘটে। তার বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকালে সুধারাম থানায় অভিযোগ করেছেন ওই প্রবাসীর বাবা। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

কুয়েত প্রবাসীর বাবা আব্দুর রব বলেন, ২০১৯ সালের ২৩ মে সুমাইয়াকে কে পারিবারিকভাবে আমার ছেলের বউ করে আনি। বিয়ের দুই মাস পর জীবিকার তাগিদে স্ত্রীকে রেখে আমার ছেলে কুয়েত চলে যায়। এরপর করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হওয়ায় সে দেশে আসতে পারেনি। এই সুযোগে সুমাইয়া স্থানীয় এক যুবকের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে। তিনি আরো বলেন, চলতি বছরের ২২ জানুয়ারি ভোরে আমার ঘর থেকে পাঁচ লাখ টাকা ও ১০ ভরি স্বর্ণালংকার নিয়ে উধাও হয়ে যায় সুমাইয়া। পরে জানতে পারি সে প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়ে গেছে। তবে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তার সন্ধান পাইনি।

সুধারাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ফজলুল হক পাটোয়ারী জানান, অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তদন্ত চলছে। প্রাথমিকভাবে দুই থানায় নোটিশ পাঠানো হবে। তদন্ত শেষে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.