আদমদীঘিতে ১৩ বছরের স্কুল ছাত্র বলৎকারের শিকার : লম্পট পলাতক

৫৮

আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার আদমদীঘিতে ১৩ বছর বয়সের ৮ম শ্রেনির এক স্কুল ছাত্র বলৎকারের শিকার হয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে লম্পট আনিছুর রহমান খা (৩৯) পলাতক রয়েছে। ওই শিশুকে প্রথমে আদমদীঘি হাসপাতালে ও পরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে। গত ১০ ফেব্রুয়ারী বুধবার বিকেল সাড়ে ৫টায় আদমদীঘির ডহরপুর গ্রামের জনৈক করিম উদ্দিনের চাতালের পাশে কলাবাগানে এ বলৎকারের ঘটনাটি ঘটে।

জানাযায়, আদমদীঘির ডহরপুর গ্রামের নতুনকুড়ি স্কুলের ৮ম শ্রেনির শিশু (১৩) পাশের জনৈক আব্দুল করিমের বাসায় তার মেয়ের নিকট প্রাইভেট পড়তো। গত বুধবার বিকেলে প্রাইভেট পড়তে যায়। কিন্তু প্রাইভেট পড়া না হওয়ায় আব্দুল করিমের শ্যালক একই গ্রামের ছায়ের আলী খাঁর ছেলে দুই সন্তানের জনক আনিছুর রহমান ওই শিশুকে কৌশলে করিমের চাতালের পাশে কলাবাগানে নিয়ে বলৎকারের শিকার করে। পরে শিশুটি অসুস্থ হলে তার পরিবার প্রথমে আদমদীঘি ও পরে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করান। সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এদিকে ঘটনাটি জানাজানি হলে লম্পট আনিছুর রহমান পালিয়ে যায়। তার বিরুদ্ধে নানা অসামাজিক কর্মকান্ডের অভিযোগও রয়েছে বলে গ্রামবাসিরা জানান। বলৎকারের শিকার শিশুর মা ও বাবা জানান, শিশুটির ওই স্থানসহ গলায় প্রচন্ড ব্যাথা অনুভব করছে। ছেলের চিকিৎসা নিয়ে ব্যস্ত থাকায় এখনও মামলা দায়ের করা হয়নি। আদমদীঘি থানার ওসি তদন্ত আলমাস হোসেন জানায়, এখন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পাওয়া গেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.