প্রচারনায় এগিয়ে নৌকার প্রার্থী,অভ্যন্তরীন কোন্দলে বিএনপি

বাগেরহাট পৌর নির্বাচন

৮৬

আল আমিন খান সুমন,বাগেরহাট,
আসন্ন ১৪ ফেব্রুয়ারী বাগেরহাট পৌরসভা নির্বাচণে আওয়ামী লীগ প্রার্থী খান হাবিবুর রহমান প্রচার প্রচারনায় ব্যস্ত সময় পার করলেও বিএনপি মধ্যে দলীয় কোন্দল থাকায় তাদের মধ্যে তেমন নির্বাচনি আমেজ দেখা যাচ্ছে না। তবে সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও সাধারণ কাউন্সিলর তাদের নিজ নিজ প্রতীক নিয়ে প্রচার প্রচারনায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। উৎসব মুখর এই নির্বাচনে আওয়ামীলীগ ও বিএনপি দলীয় ২ জন মেয়র প্রার্থী, সংরক্ষিত মহিলা আসনে ০৬ জন প্রার্থী ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২০ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। ইতিমধ্যে সুষ্ঠু ও সুন্দর নির্বাচনের জন্য স্থানীয় নির্বাচন কমিশনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও পুলিশ প্রশাসন সহ আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তাগণ সর্বদা তৎপর রয়েছেন। প্রচার প্রচারণার সাথে সাথে শহর জুড়ে ব্যানার, পোষ্টার শোভা পাচ্ছে অলিতে গলিতে, গানে গানে এরা উৎসব মুখর হয়ে উঠেছে পরিবেশ।

এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের কোন দলীয় কোন্দল না থাকায় জেলা আওয়ামলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বারবার নির্বাচিত মেয়র খাঁন হাবিবুর রহমান চতুর্থবারের মত আওয়ামলীগের মনোনয়ন নিয়ে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হয়েছেন। আওয়ামী লীগ ও সকল অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মিরা স্বতস্ফুর্তভাবে নির্বাচনের প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। জেলা আওয়ামী লীগের দিক নির্দেশনা ও সার্বিক পরিচালনায় সুপরিকল্পিত ভাবে বিভিন্ন পেশার মানুষের সাথে নৌকার পক্ষে প্রচার প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন। আওয়ামী লীগের নেতা কর্মিরা বলেন, বিগত সময়ে খাঁন হাবিবুর রহমান গত ১৭ বছর ধরে পৌরবাসির সেবা করেছেন। আজকে পৌর সভার যত উন্নয়ন তার অধিকাংশই খান হাবিবুর রহমানের অবদান। তারা বলেন, মহামারী করোনার সময় পৌর মেয়র যে ভাবে পৌরবাসির পাশে থেকে তিনি মানুষের সাহায্য সহযোগিতা করেছেন তারা ১৪ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনে তাঁর নিরঙ্কুশ বিজয়ের জন্য দলমত নির্বিশেষে তাঁকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করবেন।
এ দিকে বিএনপি মেয়র প্রার্থী হিসেবে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন সাবেক পৌর চেয়ারম্যান মরহুম আতাহার হোসেন আবু মিয়ার একমাত্র ছেলে বিএনপি নেতা মোঃ সাইদ নিয়াজ হোসেন (শৈবাল)। বিএনপির মধ্যে দলীয় কোন্দল থাকায় পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় নেতা কর্মীদের মাঝে নির্বাচনি আমেজ দেখা যাচ্ছে না। তাদের প্রচার, প্রচারনা পোস্টার নেই বললেই চলে। তবুও ধানের শীষের সমর্থকরা আশাবাদী সুষ্ঠু পরিবেশে নিরপেক্ষ ভোট হলে ধানের শীষের প্রার্থী বিজয় লাভ করবে।
পৌর আওয়ামীলীগের ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সভাপতি শেখ বশিরুল ইসলাম বলেন, বিএনপি দলীয কোন্দল নিয়ে ব্যাস্ত রয়েছে, মূলত বিএনপি নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য বিভিন্ন মিথ্যার আশ্রয় নিচ্ছে, তাদের উদ্দেশ্য নির্বাচন করা নয়, নির্বাচনের শুরু থেকে তারা প্রচার প্রচারনায় অংশ না নিয়ে একটার পর একটা মিথ্যা অভিযোগ করে যাচ্ছে, যার প্রত্যেকটি অভিযোগ ইতিমধ্যে মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে।
জেলা বিএনপির সদস্য সচিব মোজাফফর রহমান আলম ছাড়াও দলীয় নেতাকর্মী নির্বাচন বিষয়ে কোন প্রকার মন্তব্য করতে রাজি হননি।
পৌরসভার মোট ৯ টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৫,৬ ও ৭ নং ওয়ার্ডে একাধিক কোন প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহন না করায় ৫ নং ওয়ার্ডে শেখ আবুল হাসেম শিপন, ৬ নং ওয়ার্ডে আলহাজ¦ তালুকদার আব্দুল বাকী, ৭ নং ওয়ার্ডে শাহনেওয়াজ মোল্লা দোলনকে পৌর নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় কাউন্সিলর হিসেবে বিজয়ী হয়েছেন।
জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফারাজি বেনজির আহমেদ জানান, আগামী ১৪ই ফেব্রুয়ারী বাগেরহাট পৌরসভা নির্বাচনে ৯ টি ওয়ার্ডে ১৫ টি কেন্দ্রে ৩৮২০০ জন ভোটার ইভিএম এর মাধ্যমে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। মেয়র পদে ০২ জন প্রার্থী সাধারন কাউন্সিলর পদে ২০ জন, সংরক্ষিত মহিলা আসনে ০৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দীতা করবে। নির্বাচনে সঠিক নিয়ম অনুযায়ী স্বচ্ছ ,সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ন ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে।
বাগেরহাট পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায় বলেন, পৌর সভা নির্বাচনে প্রতিটি কেন্দ্রে পুলিশ সদস্যের পাশাপাশি র‌্যাব,বিজিপি,আনসারসহ প্রশাসনের বিশেষ বাহিনী উপস্থিত থাকবে। যে সকল কেন্দ্রসমূহ ঝুকিপূর্ন সে সকল কেন্দ্রে প্রশাসনের বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হবে। তিনি বলেন, সাধারন মানুষ যাতে শান্তি পূর্ন ভোট কেন্দ্রে যেতে পারে তার সকল ব্যবস্থা করা হবে বলে তিনি জানান।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.