নাটোরের স্বামীর অনুমতি না নিয়ে চাকরি করায় স্ত্রীকে হত্যা!

নাটোর প্রতিনিধি
নাটোরের লালপুরে মাঝগ্রামে স্ত্রী শারমিন আক্তারকে হত্যার দায়ে স্বামী সাদ্দাম হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাকে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার গোপালপুর কয়েট্টা গ্রামের তার খালুর বাড়ি থেকে আটক করা হয়েছে।
বুধবার সকালে নাটোর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিং-এ নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা জানান, প্রায় দুই বছর আগে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ থানার লহলামারী সাহেব গ্রামের তহুরুল ইসলামের মেয়ে শারমিন খাতুনকে বিয়ে করে ভ্যানচালক সাদ্দাম হোসেন।

বিয়ের পর থেকে তাদের দাম্পত্য জীবনে ঝামেলা চলছিল। সংসারে অভাবের কারণে প্রায় তিন মাস আগে স্বামীর অনুমতি ছাড়া শারমিন পাবনা জেলার ঈশ্বরদী ইপিজেডে চাকরি নেন। গত ২৩ জানুয়ারি রাত ১১টার দিকে ইপিজেডে চাকরির বিষয়কে কেন্দ্র করে তর্কবির্তকের এক পর্যায়ে নিজ ঘরে সাদ্দাম শারমিনকে শ্বাসরোধে হত্যা করে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় শারমিনের ভাই রিপন আলী সোমবার লালপুর থানায় মামলা করেন।
মামলার পর অভিযান চালিয়ে ভোরে সাদ্দাম হোসেনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদে এবং আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করলে বিজ্ঞ আদালত আসামিকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.