1. zahersherpur@gmail.com : abu zaher Zaher : abu zaher Zaher
  2. Bijoybangla2008@gmail.com : bijoybangla :
  3. harezalbaki@gmail.com : Harez :
  4. krKhayer29@gmail.com : khayer :
  5. mannansherpur81@gmail.com : mannan :
  6. wadut88@gmail.com : wadut :
শেরপুরে ২ শতাধিক দেশি মুরগির খামার বন্ধ! খামারিরা দিশেহারা - বিজয় বাংলা
শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:১৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
সাতক্ষীরায় স্বর্ণের ১৬ বারসহ পাচারকারী আটক আইজিপির সঙ্গে বৈঠক শেষে যা বললেন বিএনপি নেতারা বিএনপি নেতা মজিদকে আটকের প্রতিবাদ জানিয়েছেন শেরপুর বিএনপি নেতৃবৃন্দ ৩০কেজি গাঁজা ও ঈগল পরিবহনের সুপারভাইজারসহ আটক ৩ ধুমপান প্রতিরোধে করনীয় মধুখালীতে শীর্ষক কর্মশালা আওয়ামীলীগ কেন জানি বিএনপি-জাতীয় পার্টির মত হয়ে যাচ্ছে: হুইপ স্বপন জমি বিরোধের জের- বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা ফুলবাড়ীতে স্কাউটস ভিত্তি স্থাপন ও শীতকালী ক্রীড়া প্রতিযোগীর শুভ উদ্বোধন নোয়াখালীতে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার আদমদীঘিতে ভ্রাম্যমান আদালতে জাটকা মাছ জব্দ, বিক্রেতার জরিমানা ধুনটে ১০১ পিছ ইয়াবাসহ যুবক গ্রেপ্তার ধুনটে মোবাইলে আসক্ত স্কুল ছাত্রের লাশ উদ্ধার শেরপুরে বিএনপি নেতা আটক কাজিপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও পতাকা প্রদান অনুষ্ঠিত স্বস্তির জয় নিয়ে শেষ ষোলতে আর্জেন্টিনা পাবনায় ছেলের সঙ্গে এসএসসি পাস করলেন স্ত্রী মধুখালীতে কুমড়ার বাম্পার ফলন ফুলবাড়ী পৌরসভার সভাকক্ষে শহর সমন্বয় কমিটির আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত  ডায়াবেটিস প্রতিরোধে নিজে উদ্যোগী ও সচেতন হতে হবে : ডেপুটি স্পিকার নোয়াখালীতে গরু চুরির আতঙ্কে র্নিঘুম রাত, পাহারায় গৃহস্থ ও খামারিরা

শেরপুরে ২ শতাধিক দেশি মুরগির খামার বন্ধ! খামারিরা দিশেহারা

  • সর্বশেষ সংস্করণ : রবিবার, ১৩ নভেম্বর, ২০২২
  • ৯১ বার দেখা হয়েছে

মাহফুজ আহম্মেদ :
বগুড়ার শেরপুরে বড় ধরনের লোকসানে দিশেহারা হয়ে প্রায় ২ শতাধিক দেশি মুরগির খামর বন্ধ করেছে খামারিরা ও উদ্যোক্তারা। তারা জানান, দেশি মুরগি পালন করে সারা দেশে সাড়া জাগায় এ উপজেলার কামারিরা। প্রায় ৩ শতাধিকের উপরে দেশি মুরগির খামার থাকলেও লোকসানের মুখে বন্ধ হয়েছে প্রায় সকল খামারগুলো। অনেক শিক্ষিত বেকার যুবক চাকরি না পেয়ে দেশি মুরগি পালনে নিজের শেষ সম্বলটুকু দিয়ে শুরু করেছিল মুরগি পালন। কিন্তু যথাযথ উপকরনের দামবৃদ্ধি, খাদ্যের দাম বৃদ্ধি ও সঠিক দিক নির্দেশনার অভাবে দিশেহারা হয়ে সম্বলটুকু হারিয়ে পথে বসেছে এসব দেশি মুরগির খামারিরা।
সরেজমিনে গিয়ে কথা হয় শেরপুর উপজেলার হামছায়াপুর এলাকার মুরগির খামারি আব্দুল আজিজের সঙ্গে, তিনি জানান, নিজের গচ্ছিত টাকা ও অন্যের থেকে ধার নিয়ে দুই লক্ষ টাকা দিয়ে মুরগির খামার করি। ১ থেকে ২টি সেডে মোটামুটি লাভ করে দেশি মুগির দিকে ধাবিত হয়। প্রথম সেডেই ভালো লাভের সম্ভাবনা তৈরি হলেও হঠাৎ কিছু মুরগি অসুস্থ্য হয়। পরে চিকিৎসা সেবা নিতে শেরপুর উপজেলা ভেটেরিনারী কর্মকর্তার স্বরনাপন্য হলেও তিনি খামার পরির্দন না করেই কিছু ঔষধ লিখে দেন। যা খাওয়ানোর পরেও মুরগির অসুখ কমানো যাচ্ছিল না। এক পর্যায়ে মুরগি মরা যাওয়া শুরু হলে আবারো ডাঃ এর সাথে যোগাযোগ করা হলেও কোন সঠিক দিক নির্দেশনা পাইনি। অনেক ধরনা দিয়েও তাকে খামারে নিয়ে আসা সম্ভব না হওয়ায় খামারের প্রায় অর্ধেক মুরগি এক রাতেই মারা যায়। যার ফলে লাভ তো দুরের কথা নিজের জমানো শেষ সম্ভবটুকু হারিয়ে খামার বন্ধ করে দিতে বাধ্য হই। এতে দিশেহারা হয়ে পরি।

Alal Group

সুঘাট ইউনিয়নের আরেক খামারি, আমানুল্লাহ দেশি মুরগি লালন পালন করতে গিয়ে উপজেলা প্রানীসম্পদ অফিসের স্মরনাপন্য হলে শুধু প্রেসকিপশনের মাধ্যমে সেবা পেয়েছেন। খামারে পরিদর্শনের কথা জানানো হলে আমাকে জানানো হয়, বাইকের তৈল খরচ বাবদ ৫শ টাকা আজ দিয়ে যেতে হবে তবেই আগামি কাল গিয়ে দেখে আসবো। কিন্তু ভুক্তভোগী সেই ৫শ টাকা না দেয়ায় তার আর সেবা পাওয়া হয়নি। ফলে খামারে মুরগী মরে বড় ধরনের লোকসানের মুখে দেশি মুরগি লালন পালন বাদ দেন।
আরেক খামারি আফরোজা খাতুন জানান, প্রায় ৩ বছর দেশি মুরগির খামার করেছিলেন তিনি। কিন্তু প্রথম সেডে লাভের মুখ দেখলেও পরে আর লাভ করা সম্ভব হয়নি। তিনি জানান, দেশি মুরগি মাংসের জন্য লালন পালন করে যখন ডিম দিয়ে বাচ্চা উৎপাদন করার জন্য দেশি মুরগি লালন পালন করা হয় তখন দীর্ঘদিন পালনের মাধ্যমে মুরগির অসুখের সম্ভাবনা বেশি হয়। ফলে লোকসানের মুখে পড়তে হয়। তিনি ৩ বছর মুরগি পালনে লক্ষাধীক টাকার লোকসান গুনে দেশি মুরগি খামার বন্ধ করতে বাধ্য হন। তিনি আরোও বলেন খাদ্যের দাম যে হারে বেড়েছে তাতে লাভ করার কোন উপায় নাই। খামার আপাতত বন্ধ। কারেন্ট বিল, লেবার খরচ, ভ্যাকসিনের দাম সব মিলিয়ে মুরগি পালন করে এক টাকা লাভ নাই। ডিলাররা বর্তমানে ফিড ও বাচ্চা বাঁকিতে দিতে চাইলেও অনেক খামারি নিচ্ছেন না। মুরগি তুলে গলার কাঁটা করে কোন লাভ নাই।

Alal Group

শেরপুরে প্রায় প্রায় ৩ শধাধিক দেশি মুরগির খামার থাকলেও বর্তমানে লোকসানের মুখে ও পাইকারিতে যে দামে মুরগি বিক্রি হচ্ছে তাতে খামারিদের লোকসান হচ্ছে এবং উৎপাদন খরচ তুলতে না পারায় ব্যবসা গোটাচ্ছেন খামারিরা। বর্তমানে ৪০ থেকে ৫০ জন খামারি দেশি মুরগি লালন পালন করছেন। কিন্ত এই প্রতিবেদককে জানান, খাদ্যের দাম, ওষুধের দাম সহ প্রয়োজনীয় সকল পন্যের দাম যেভাবে লাগামহীন ভাবে বেড়ে যাচ্ছে তাতে আগামিতে খামার চালু রাখতে পারবো কিনা আল্লাহই ভাল জানেন।

বর্তমানে ৬৫ থেকে ৭৫ শতাংশ খামার বন্ধ। অনেক খামারি পুুঁজি সংকটে বাচ্চা না কিনে খামার বন্ধ করে দিয়েছেন। কিন্তু এখন নিয়মিত খাদ্যের মুল্য বৃদ্ধি ও সেই সাথে দামে ধস নেমেছে এসময় খামারিরা বাঁচবে কিভাবে এটাই বড় প্রশ্ন। এ ব্যাপারে শেরপুর উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ আবু রায়হান পিএএ জানান, লোকসানের মুখে অনেকেই খামার বন্ধ করেছেন, আবার অনেকেই অন্য কিছুর দিকে ঝুঁকে পরেছেন। তবে আমরা চেষ্টা করবো যেন খামারিরা বর্তমান বাজার দরে তাদের পালিত মুরগী বিক্রি করে কিভাবে লাভবান হতে পারেন সেই টেকনিক্যাল সাপোর্ট দিতে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
© সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ বিজয় বাংলা
Theme Download From ThemesBazar.Com
RSS
Follow by Email