1. zahersherpur@gmail.com : abu zaher Zaher : abu zaher Zaher
  2. Bijoybangla2008@gmail.com : bijoybangla :
  3. harezalbaki@gmail.com : Harez :
  4. mannansherpur81@gmail.com : mannan :
  5. wadut88@gmail.com : wadut :
পাবনায় স্ববেতনে শিক্ষা ছুটিতে ৫ বছর আমেরিকায় অবস্থান - বিজয় বাংলা
শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:২৩ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
শেরপুরে বিপুল পরিমান গাঁজাসহ গ্রেপ্তার ২ চার বিভাগে বৃষ্টির আভাস বগুড়ার অভিযানে চার ব্যবসায়ীর জরিমানা শেরপুরে দায়ের কোপে আহত মিজানুর রহমান শেরপুরে অসুস্থ মাকে দেখতে গিয়ে, নিজেই লাশহয়ে ফিরলের বাড়ীতে নিখোঁজের দু’বছর পর এক তরুণের বস্তাবন্দী মরদেহ উদ্ধার আদমদীঘিতে পোনা মাছ অবমুক্ত আদমদীঘিতে ইউএনও‘র বিদায়ী সংবর্ধনা আদমদীঘিতে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার-১ নবীনগরে সামাজিক সম্প্রীতি সমাবেশ শেরপুরে ভাদড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মূল ফটকের উদ্বোধন শেরপুর উপজেলার শ্রেষ্ঠ বিদ্যোৎ সাহী সমাজকর্মী খোকন শেরপুরে নিখোঁজে ৩দিন হলেও সন্ধান মেলেনি উজ্জলের নারায়ণগঞ্জে সাবেক ছাত্রলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা মইন খানের সমালোচনার জবাব দিলেন রিজওয়ান টাঙ্গাইলে জিনের বাদশা জাহাঙ্গীর আটক সিরাজগঞ্জে ১৩০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট’সহ ২ জন আটক মিডিয়া ফেলোশিপ অ্যাওয়ার্ড পেলেন সময়ের খবরের শোহান সিরাজগঞ্জে সোস্যাল ওয়ার্ক সেন্টারে আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস পালিত বাগেরহাটে মামার ঘেরে মাছ চুরি, দেখে ফেলায় পাহারাদারকে হত্যা

পাবনায় স্ববেতনে শিক্ষা ছুটিতে ৫ বছর আমেরিকায় অবস্থান

  • সর্বশেষ সংস্করণ : শুক্রবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ১৫ বার দেখা হয়েছে

আটঘরিয়া (পাবনা) প্রতিনিধিঃ
উচ্চ শিক্ষা অর্জনের জন্য ছুটি নিয়ে ৫ বছর আমেরিকায় অবস্থান। বসে বসে বেতন উত্তোলন করেন। পুনরায় কলেজে স্বপদে ফিরে গিয়ে শিক্ষা সনদ দেখাতে পারেননি। যোগদানের ৭ বছর অতিবাহিত হতে চলেছে, কিন্তু অধ্যক্ষ কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেননি।
মূলত উচ্চ শিক্ষার্থে নয়, ডিবি লটারীতে দীর্ঘ ৫ বছর ২৭ দিন আমেরিকায় অবস্থান করেন অধ্যক্ষ রোকসানা খানম। এ ঘটনায় দুদকসহ বিভিন্ন দফতরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন গভর্নিং বডির সাবেক এক সভাপতি।  ঘটনাটি ঘটেছে পাবনার বেড়া উপজেলার কাশিনাথপুর মহিলা ডিগ্রি কলেজে।

Alal Group

লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, ওই কলেজের অধ্যক্ষ রোকসানা খানম ২০১১ সালে মিথ্যাচার করে ডিজির অনুমতি ছাড়াই কলেজ গভর্নিং বডির তৎকালীন সভাপতি আব্দুল কাদেরের কাছ থেকে উচ্চ শিক্ষার জন্য স্ববেতনে ২ বৎসরের জন্য ছুটি নিয়ে আমেরিকায় যান।
গত ০৯/০৫/২০১১ তারিখ থেকে০৮/০৫/২০১৩ পর্যন্ত আমেরিকা অবস্থান শেষে বাংলাদেশে এসে পুনরায় কলেজে যোগদান করার জন্য গেলে তখনকার দায়িত্বপ্রাপ্ত সভাপতি এসএম শাহাবুদ্দিন টুটুল উচ্চ শিক্ষার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখাতে বললে তিনি দেখাতে ব্যর্থ হন। তখন তাকে কলেজ গভর্নিং বডি যোগদান করতে না দিয়ে তার বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।
কলেজের যোগদান করতে না পেরে রোকসানা খানম পুনরায় আমেরিকায় চলে যান। ঘটনাটি প্রশাসন মহলে জানাজানি হলে গত ২৯/১০/২০১৩ তারিখে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশে বেড়া উপজেলা মাধ্যমিক একাডেমিক সুপারভাইজার মো. মনোয়ার হোসেনকে তদন্ত কমিটিতে নিয়োগ দেওয়া হয়।
পরবর্তীতে ২৪/১১/২০১৩ তারিখে সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক এ.এইচ.এম.এ ছালেককে তদন্ত কমিটির প্রতিনিধি হিসেবে মনোনয়ন দেওয়া হয়। পর্যায়ক্রমে ২১/১০/২০১৪ তারিখে সরকারি আজিজুল হক কলেজের মনোবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এবিএম মিশামুল হাবীব (জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি) ও পর্যায়ক্রমে কমিটি পরিবর্তন করে ডিজির প্রতিনিধি
সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. হুমায়ুন কবির মজুমদার ও বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল মজিদকে পুনরায় তদন্ত কমিটির মনোনয়ন দেওয়া হয়। কিন্তু ৭-৮ বছর অতিবাহিত হলেও অজ্ঞাত কারণে তদন্ত কমিটির কেউই কোন রিপোর্ট অদ্যাবধি পেশ করেন নাই।

Alal Group

এদিকে দ্বিতীয়বার আমেরিকা থেকে ফিরে অধ্যক্ষ রোকসানা খানম তার উচ্চতর ডিগ্রি অর্জনের সনদপত্র গভর্নিং বডির কাছে শিগগিরই জমাদানের প্রতিশ্রæতি দিয়ে ০৫/১১/২০১৭ তারিখে কলেজে যোগদান করেন। কিন্তু সনদপত্র জমা দেব, দিচ্ছি বলে বলে এবং নানারকম অজুহাত দেখিয়ে তিনি কালক্ষেপন করতে থাকেন এবং পরবর্তীতে স্থানীয় সংসদ সদস্যকে ম্যানেজ করে তাকে দিয়ে গভর্নিং বডির সভাপতিকে চাপ প্রয়োগ করে স্বপদে বহাল তবিয়তে দায়িত্ব পালন করতে থাকেন।
কলেজের একাধিক শিক্ষক-শিক্ষিকা অভিযোগে জানান, উচ্চ শিক্ষার্থে নয়, ডিবি লটারীতে দীর্ঘ ৫ বছর ২৭ দিন আমেরিকায় অবস্থান করেন অধ্যক্ষ রোকসানা খানম। এসময় তিনি অনৈতিকভাবে সরকারি কোষাগার থেকে বেতনভাতা উত্তোলন করেছেন। যা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯৯৪ সালে উচ্চশিক্ষা লাভের ছুটি বিধি ( ক ) ( খ ) ও ( গ ) ও শিক্ষামন্ত্রণালয় ২০১০ সালের ছুটিবিধি ( ক ) ( খ ) ও ( গ ) লঙ্ঘন করেছেন।
তথ্য গোপন করে সরকারি বেতন-ভাতা উত্তোলন করেছেন- মর্মে দুদকসহ বিভিন্ন দফতরে অভিযোগ দায়ের করেছেন কলেজ গভর্নিং বডির সাবেক সভাপতি এস এম শাহাবুদ্দিন টুটুল। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে শাহাবুদ্দিন টুটুল বলেন,
আমেরিকার ডিবি পেলেও তিনি তথ্য গোপন করে উচ্চ শিক্ষার নাটক সাজিয়ে আমার প‚র্বে দায়িত্বপ্রাপ্ত সভাপতির কাছ থেকে অনৈতিক উপায়ে ছুটি নিয়ে ৫ বছর আমেরিকায় অবস্থান করেছেন, নীতিমালা উপেক্ষা করে ব্যাংক লেনদেন সম্পন্ন করছেন। কলেজের নীতিমালায় সভাপতি ও অধ্যক্ষ দ্বারা ব্যাংকের আর্থিক লেনদেন পরিচালিত হওয়ার নিয়ম উপেক্ষা করে অধ্যক্ষ রোকসানা খানম গভর্নিং বডির আরও দুই সদস্যের স্বাক্ষর দিয়ে ব্যাংক থেকে বেতন উত্তোলন করেছেন। আমেরিকায় অবস্থান করেও কার স্বাক্ষরে এমপিও’র অর্থ ব্যাংক হিসাবে জমা হলো- এ বিষয়ে সোনালী ব্যাংক, বেড়া শাখায় খোঁজ নিতে গেলে জানা যায়, অধ্যক্ষ রোকসানা খানম এর বেতন নিয়মিতই উত্তোলন হয়েছে।
সরেজমিনে তথ্য সংগ্রহ করতে উক্ত কলেজে গেলে অধ্যক্ষর পক্ষে শিক্ষক কর্মচারীরা সাংবাদিককে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে লাঞ্চিত করার চেষ্টা করে। এসময় ছবি তুলতে বাধা প্রদান করেন।
এব্যাপারে অধ্যক্ষ রোকসানা খানম ডিবি লটারীতে আমেরিকায় যওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, আমি যেহেতু আমেরিকা যাবার সুযোগ পেলামই সে কারনে আমার ইচ্ছে হল উচ্চ শিক্ষা অর্জনের। আমি গভর্নিং বডির অনুমতিক্রমেই আমেরিকা গিয়েছিলাম। আমেরিকা থাকাকালিন বেতন উত্তোলন করেছেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, কয়েক মাস বেতন উত্তোলন করেছিলাম তার পর গভর্নিং বডি বেতন বন্ধ করে দেয়।
পরে আর বেতন উত্তোলন করতে পারিনি। উচ্চ শিক্ষা অর্জনের জন্য ছুটি নিলেও সেই শিক্ষা সনদ কলেজে জমা দিয়েছেন কি না- এ প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, আমি তো উচ্চ শিক্ষা অর্জন করতে পারিনি তাহলে শিক্ষা সনদ জমা দিব কি ভাবে ? তবে আমি চেষ্টা করেছিলাম।
এ বিষয়ে সাবেক ভারপাপ্ত অধ্যক্ষ ও রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আব্দুল আলীম জানান, ‘আমাদের অধ্যক্ষ ডিবি পাওয়ার পরে দুই বছরের শিক্ষা ছুটি নিয়ে আমেরিকা যান। দুই বছর পরে এসে তিনি কোন শিক্ষা সনদ দেখাতে পারেনি। তৎকালিন গভর্নিং বডির সভাপতি মহোদয় তাকে কলেজে যোগদান করতে দেন নি। তখন তিনি আবার ছুটি বাড়ানোর আবেদন করে আবার আমেরিকা চলে যান। কিন্তু গভর্নিং বডি ছুটি বর্ধিত করেন না। তখন গভর্নিং বডির মিটিং এর মাধ্যমে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয় এবং তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কিন্তু একাধিক তদন্ত কমিটির কোন প্রতিবেদন আজঅব্দি তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেনি।’
কলেজের গভর্নিং বডির সাবেক সভাপতি এসএম শাহাবুদ্দিন জানান, ‘আমি গভর্নিং বডির সভাপতি হওয়ার পরে জানতে পারি- অধ্যক্ষ রোকসানা খানম ২০১১ সালে তৎকালীন সভাপতি আব্দুল কাদেরের

 

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
© সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ বিজয় বাংলা
Theme Download From ThemesBazar.Com
RSS
Follow by Email