1. zahersherpur@gmail.com : abu zaher Zaher : abu zaher Zaher
  2. Bijoybangla2008@gmail.com : bijoybangla :
  3. harezalbaki@gmail.com : Harez :
  4. mannansherpur81@gmail.com : mannan :
  5. wadut88@gmail.com : wadut :
অনুমতির অপেক্ষায় ৫০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ - বিজয় বাংলা
শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:১২ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
শেরপুরে বিপুল পরিমান গাঁজাসহ গ্রেপ্তার ২ চার বিভাগে বৃষ্টির আভাস বগুড়ার অভিযানে চার ব্যবসায়ীর জরিমানা শেরপুরে দায়ের কোপে আহত মিজানুর রহমান শেরপুরে অসুস্থ মাকে দেখতে গিয়ে, নিজেই লাশহয়ে ফিরলের বাড়ীতে নিখোঁজের দু’বছর পর এক তরুণের বস্তাবন্দী মরদেহ উদ্ধার আদমদীঘিতে পোনা মাছ অবমুক্ত আদমদীঘিতে ইউএনও‘র বিদায়ী সংবর্ধনা আদমদীঘিতে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার-১ নবীনগরে সামাজিক সম্প্রীতি সমাবেশ শেরপুরে ভাদড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মূল ফটকের উদ্বোধন শেরপুর উপজেলার শ্রেষ্ঠ বিদ্যোৎ সাহী সমাজকর্মী খোকন শেরপুরে নিখোঁজে ৩দিন হলেও সন্ধান মেলেনি উজ্জলের নারায়ণগঞ্জে সাবেক ছাত্রলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা মইন খানের সমালোচনার জবাব দিলেন রিজওয়ান টাঙ্গাইলে জিনের বাদশা জাহাঙ্গীর আটক সিরাজগঞ্জে ১৩০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট’সহ ২ জন আটক মিডিয়া ফেলোশিপ অ্যাওয়ার্ড পেলেন সময়ের খবরের শোহান সিরাজগঞ্জে সোস্যাল ওয়ার্ক সেন্টারে আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস পালিত বাগেরহাটে মামার ঘেরে মাছ চুরি, দেখে ফেলায় পাহারাদারকে হত্যা

অনুমতির অপেক্ষায় ৫০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ

  • সর্বশেষ সংস্করণ : রবিবার, ২১ আগস্ট, ২০২২
  • ২৫ বার দেখা হয়েছে

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমতি মিললে চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। এবার সংস্থাটি ৫০ হাজারের বেশি শিক্ষক নিয়োগ দেবে। সবকিছু ঠিক থাকলে এ বছরের অক্টোবরে এ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। এনটিআরসিএ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

Alal Group

জানতে চাইলে এনটিআরসিএর সচিব ওবায়দুর রহমান বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, এখন ই-রিকুজিশন চলছে। এটি যাচাই-বাছাই শেষে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও তিন অধিদপ্তরের মতামত নেয়া হবে। যেহেতু এমপিওর মতের সঙ্গে বিশাল অর্থছাড়ের বিষয় আছে। মন্ত্রণালয় সাড়া পেলে খুব দ্রুতই গণবিজ্ঞপ্তি দেয়ে হবে। তিনি আরও বলেন, সারা দেশের স্কুলগুলোতে শিক্ষক সংকট রয়েছে। এবারের চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তিতে ৫০ হাজারের বেশি শিক্ষক নিয়োগের ফলে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক সংকট দূর হবে। সূত্র জানায়, অক্টোবর মাসে চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে চায় এনটিআরসিএ। এর আগে চলতি বছরের এপ্রিলে প্রকাশের কথা থাকলেও তা হয়নি। তবে বিশ্ব অর্থনীতি মন্দার কারণে এই বিপুল শিক্ষক নিয়োগ এখন দেয়া হবে কি-না তা নিয়ে সংশয় রয়েছে অনেকের।

Alal Group

চাকরি প্রত্যাশীরা বলছেন, ২০১৯ সালে প্রিলিমিনারি, এরপর লিখিত পরীক্ষা পাস করার পর এখনো নিয়োগ না পেয়ে সবাই খুব হতাশায় রয়েছেন। দীর্ঘসূত্রিতার কারণে এরমধ্যে শিক্ষক হওয়ার সর্বোচ্চ বয়স অতিক্রম করে ফেলেছেন অনেকে। তাই খুব শিগগির এই বিজ্ঞপ্তির কোনো বিকল্প নেই। এছাড়াও গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর পুলিশ ভেরিফিকেশ ও এমপিও করতে কমপক্ষে আরও ৬ মাস সময় লাগবে। চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রত্যাশী রাশেদুল ইসলাম বলেন, তিন ধাপে পরীক্ষা নিয়েও এনটিআরসিএ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেনি। এরমধ্যে ৮ হাজার শিক্ষকের বয়স ৩৫ অতিক্রম করেছে। অথচ এনটিআরসিএ’র নীতিমালায় ২ মাসের মধ্যে ফল প্রকাশ করার কথা। এই বিষয়ে এনটিআরসিএ চেয়ারম্যানকে লিখিত একটি অভিযোগ দেয়া হয়েছে। সর্বশেষ এনটিআরনিএ চেয়ারম্যান এপ্রিলে গণবিজ্ঞপ্তির প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।
তিনি আরও বলেন, এনটিআরসিএ কলেজ পর্যায়ে ১০০ জনে এক জন পাস করেন। আমি কলেজের নিবন্ধনধারী। আমার বয়স ৩৪ পেরিয়ে গেছে। তিন ধাপে পাস করার পর আমি যদি গণবিজ্ঞপ্তির কারণে আবেদন না করতে পারি তবে ভেবে দেখেন আমার কি হবে!

এদিকে বিভিন্ন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চতুর্থ ধাপে শিক্ষক নিয়োগের জন্য দেয়া শূন্যপদের তথ্য সংশোধনের সুযোগ দিয়েছে এনটিআরসিএ। শুক্রবার (১৯ আগস্ট) থেকে শূন্যপদের তথ্য সংশোধন শুরু হয়েছে, যা ২৪ আগস্ট পর্যন্ত চলবে। ২৫ আগস্ট থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত শূন্যপদের তথ্য মাঠ পর্যায়ের উপজেলার শিক্ষা কর্মকর্তারা যাচাইয়ের সুযোগ পাবেন। এরপর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তারা ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শূন্যপদের তথ্য যাচাই করবেন। সম্প্রতি এ বিষয়ে একটি বিজ্ঞপ্তিও জারি করেছেন তারা।
আবেদন প্রক্রিয়া কেমন হবে এ বিষয়ে এনটিআরসিএ সচিব ওবায়দুর রহমান বলেন, সিস্টেম তো একই থাকবে। অনলাইনে আবেদন, অনলাইনে প্রসেস, যিনি মেধা তালিকায় আগে থাকবেন তিনিই নিয়োগ পাবেন। কোনো নতুন সিস্টেমের সুযোগ নেই এখানে। তবে শিক্ষকদের ভুল চাহিদা না থাকে এর জন্য সফটওয়্যারের আধুনিকায়ন করা হবে। যার কাজ চলছে।
এনটিআরসিএর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, সর্বশেষ তৃতীয় গণনিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে ৮ হাজার ৪৪৮টি পদে কোনো আবেদন না পাওয়ায় এবং ৬ হাজার ৭৭৭টি নারী কোটায় প্রার্থী না পাওয়ায় মোট ১৫ হাজার ৩২৫টি পদে ফলাফল দেয়া সম্ভব হয়নি। এ পদগুলো চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তিতে যোগ করা হবে। গত বছর ১৫ জুলাই রাতে তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশ করে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ এনটিআরসিএ। তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তি থেকে এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানে ৩৪ হাজার ৬১০ জন এবং ননএমপিও প্রতিষ্ঠানে তারা তিন হাজার ৬৭৬ জনকে প্রাথমিকভাবে সুপারিশ করেছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
© সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ বিজয় বাংলা
Theme Download From ThemesBazar.Com
RSS
Follow by Email