বগুড়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত দুই : আহত ৩

৫৪

বগুড়ার শেরপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজন নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিনজন। এরমধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। বৃহস্পতিবার (২১জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের নয়মাইল ও উপজেলার সীমাবাড়ী ইউনিয়নের ধনকুণ্ডি এলাকায় পৃথক এই সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে বগুড়াগামী একটি মালবাহী ট্রাক মহাসড়কের নয়মাইল নামক স্থানে মোটরসাইকেলকে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেলের চালক রতন হোসেন (২৮) মারা যান। তিনি নাটোর জেলার বড়াইগ্রাম উপজেলার জোনাইল গ্রামের জেবু মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় আহত ইমাম হোসেন (২৬) নামের এক পথচারী আহত হন। গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে তাকে বগুড়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে একইদিন বেলা চারটার দিকে শেরপুর উপজেলার ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের ধনকুণ্ডি এলাকায় কাভার্ডভ্যান ও পিকআপের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে পিকআপের চালক হিরা মিয়া (২৫) নিহত হন। তিনি সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার গারুদাহ গ্রামের বকুল মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় আরও দুইজন আহত হয়েছেন। তাদেরকে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
হাইওয়ে পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাহাঙ্গীর এই তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা একটি কাভার্ডভ্যান উক্ত স্থানে পৌঁছালে বিপরীতগামী পিকআপের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে আহত তিনজনকে স্থানীয় সরকারি হাসপাতালে নেওয়া হয়। এরমধ্যে পিকআপের চালক হিরা মিয়ার অবস্থার অবনতি ঘটলে তাৎক্ষণিক বগুড়ার শজিমেক হাসপাতালে স্থান্তান্তর করা হয়। কিন্তু সেখানে নেওয়ার এক ঘন্টা পরেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।
হাইওয়ে পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, দুঘটনার পরপরই কাভার্ডভ্যান ও পিকআপ জব্দ করা হয়েছে। সেইসঙ্গে কাভার্ডভ্যান চালককে গ্রেপ্তার করা হয়। তার নাম শফিউল্লাহ (২৫)। তিনি যশোর জেলার বাগারপাড়া উপজেলার নারিকেল বাড়ি গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে। এই ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.