শেখের বেটি সুস্থ্য থ্যাক, আল্লাহ যেন তাক দীর্ঘজীবী করে বাপু!

১২

মওদুদ আহম্মেদ, আক্কেলপুর : আসমা বেগমের স্বামীর সহায় সম্পত্তি না থাকায় রাস্তার পাশে খোপরি একটা ঘরে জীবন যাপন করেছিল। কয়েক বছর আগে আসমা বেগমের স্বামী মারা যাওয়ায় ৪ ছেলে মেয়েকে নিয়ে পথে বসে যায়। অনেকদিন অনাহারে অর্ধাহারে কেটেছে তাদের দিন। সংসারের হাল ধরতে নিজেকে ভিক্ষাবৃত্তির মতো পেশা বেছে নিতে হয়। অতি কষ্টে সন্তানের মুখে আহার তুলে দিয়েছেন। একখন্ড জমি তার কাছে স্বপ্নের মতন ছিল আর পাকাবাড়ী তো চিন্তায় করতে পারেন না। কিন্তু তার স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভূমিহীন ও গৃহহীনদের ২ শতাংশ জমি এবং ২ কক্ষ বিশিষ্ট দৃষ্টিনন্দিত ১টি পাকা বাড়ী প্রদান করছেন সরকার।

দৃষ্টিনন্দিত পাকা বাড়িটি পেয়ে আল্লাহ দরবারে দু-হাত তুলে চোখ ছল-ছল করতে করতে ভিক্ষুক আসমা বেগম বলেন, শেখের বেটি সুস্থ্য থ্যাক, আল্লাহ যেন তাক দীর্ঘজীবী করে বাপু। হামাকের মতন মানুষের যাতে আরো সেবা করার পারে।

এতোক্ষন যার কথা বলছি সে জয়পুরহাট জেলার আক্কেলপুর উপজেলার রায়কালী ইউপির দেওড়া গ্রামের আসমা বেগমের কথা। তার মত আরো ২১টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার এ উপজেলা ঘর পাচ্ছে। যার মধ্যে রায়কালী ইউপির দেওড়া গ্রামে ১০ এবং সোনামুখী ইউপির চুকাইবাড়ি গ্রামে ১১টি পরিবার।

‘‘বাংলাদেশর একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না’’ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই প্রতিশ্রুতিকে সামনে রেখে সরকারের আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রকৃত ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত ২ কক্ষ বিশিষ্ট দৃষ্টিনন্দিত সেমি পাকা ১টি ঘর এবং ২ শতাংশ জমি পাচ্ছে তারা। এ সব ঘর তৈরি নিজে তদারকি করছের আক্কেলপুরের ইউএনও।

এ মাসের জানুয়ারীর মধ্যে নির্মাণকাজ সম্পন্ন হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন আক্কেলপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস এম হাবিবুল হাসান।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস এম হাবিবুল হাসান জানান, এ উপজেলায় ‘ক’ শ্রেণীভূক্ত অর্থাৎ যার জমি নেই, ঘর নেই এমন ২১ টি পরিবার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে ২ শতাংশ জমি এবং ২ কক্ষ বিশিষ্ট ১টি করে বাড়ীর মালিক হতে যাচ্ছেন। ‘‘বাংলাদেশর একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না’’ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই প্রতিশ্রুতিকে সামনে রেখে সরকারের আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রকৃত ভূমিহীন ও গ্রহহীনদের খাসজমি বন্দোবস্থ প্রদান পূর্বক তাদের জন্য পাকা গৃহ নির্মানের এই প্রকল্পেটি উপজেলা বাস্তবায়ন কমিটির মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। সময় মতো গৃহ নির্মান কাজ শেষ করা হবে।

তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অসাধারণ এই উদ্যোগ পৃথিবীর বুকে একটি মাইল ফলক হয়ে থাকবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.