প্রাচীন নিয়মের সরিষা তেলের অনেক উপকার

৩১

ফিরোজ পোদ্দার ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি :
কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার কবিরমামুদ গ্রামে এখনও গরু দিয়ে প্রাচীন নিয়মে সরিষা মারাই করে তেল উৎপাদন করছেন মোঃ জয়েন তেলী (৭২), এই খাঁটি সরিষার তেল নিয়মিত বিক্রি হচ্ছে ফুলবাড়ী বাজারে, লাইন দিয়ে কিনছেন সব শ্রেনীর মানুষ।

প্রাচীন নিয়মে সল্প খরচে সরিষা মারাইয়ের মিল তৈরি করতে প্রয়োজন গরু, টিন, কাঠ, লোহা, ৫ ফিট উচ্চতা ৪০ থেকে ৫২ ইন্চি গোলাকার বিশিষ্ট শক্ত গাছ, যে গাছে ঘুন ধরেনা যেমন শিল কড়াই, সোনা আলু, কাঁঠাল, ইপিল ইপিল ইত্যাদ্দি।
সরিষা তেল মিলের মালিকের সাথে কথা বলে জানাযায় ৪০ কেজি সরিষা মারাই করে তেল উৎপাদন করতে সময় লাগে ১৫ থেকে ১৬ ঘন্টা। বর্তমান বাজারে সরিষার দাম অনেক বেশি, এখনকার বাজারে তেল বিক্রি করে তেমন লাভ হচ্ছে না যদিও বাজারে বিভিন্ন কোম্পানির বোতল জাত তেলের চেয়ে আমাদের তেলের দাম কেজি প্রতি ৩০ থেকে ৪০ টাকা বেশী । তবে নতুন মৌসুমের সরিষা কৃষকের ঘরে এলে বর্তমানের লোকসান মিটিয়ে নেয়া সম্ভব হবে ।
তিনি আরো বলেন ডিজিটাল পদ্ধতিতে সব কিছুই ভালো তবে সরিষা গাছে মারাই করা প্রাচীন পদ্ধতি অনেক ভালো । আমাদের সরিষা মারাই পদ্ধতিতে কোনো প্রকার পানি বা কেমিকেল ব্যবহার হয়না তাই গাছ মিলের উৎপাদন কৃত খাঁটি সরিষা তেলের অনেক উপকার যেমন শীত মৌসুমে গোসলের পর মাথা সহ সমস্ত শরিরে ব্যবহার করলে কমে যাবে শিতের হাড় কাঁপানো ঠান্ডা । নিয়মিত সরিষার তেল সেবন করলে সর্দি, জ্বর, কাঁশি, শ্বাস কষ্ট, ব্যাথা সহ বিভিন্ন রোগের উপকার পাওয়া যায়। খাঁটি সরিষা তেলের গুনগত মান সঠিক বজায় রাখতে হলে আমাদের সবাইকে প্রাচীন সরিষা মারাই পদ্ধতি ধরে রাখতে হবে ।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.