চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ, কবিরাজ আটক

১৯

নাটোরের সিংড়ায় চিকিৎসার ফাঁদে ফেলে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে নুরুজ্জামান (৩৫) নামে এক কবিরাজকে আটক করেছে থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে পৌর শহরের সরকারপাড়া মহল্লা থেকে তাকে আটক করা হয়। আটক কবিরাজ সরকারপাড়ার শাজাহান আলীর ছেলে বলে জানা গেছে।
সিংড়া থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওই গৃহবধূর (২৭) প্রায় ৯ বছর আগে সিংড়া পৌর শহরের পেট্রোবাংলা মহল্লায় বিয়ে হয়। বিয়ের দীর্ঘদিন পেরিয়ে গেলেও তার সন্তান না হওয়ায় স্থানীয়দের পরামর্শে গ্রাম্য কবিরাজ নুরুজ্জামানের কাছে চিকিৎসা নিতে যান ওই গৃহবধূ।

এই সুযোগে কবিরাজী চিকিৎসার কথা বলে গত ৫ জানুয়ারি গৃহবধূকে ওষুধ দিয়ে অচেতন করে ধর্ষণ করে কথিত কবিরাজ নুরুজ্জামান। পরে কবিরাজ নুরুজ্জামানকে আটকে রাখা হলে মাত্র ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে বিষয়টি রাতারাতি ধামাচাপা দেয় স্থানীয় কয়েকজন যুবক। আর ছেড়ে দেওয়া হয় কথিত কবিরাজকে। পরে ওই গৃহবধূ সিংড়া থানায় মামলা দায়ের করে।
সিংড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নূর-এ-আলম সিদ্দিকী বলেন, এ বিষয়ে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার কথিত কবিরাজ নুরুজ্জামানকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.