সুনামগঞ্জে দেবর-ভাবীকে জেলহাজতে প্রেরণ

২২

হাওরাঞ্চল প্রতিনিধি,সুনামগঞ্জ:
সুনামগঞ্জে একটি আবাসিক হোটেল থেকে দেবর ও ভাবীকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ। দেবরের নাম- মানিক মিয়া ( ২২)। তার বড় ভাইয়ের স্ত্রীর (ভাবি) নাম- মাহিমা বেগম (২০)। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় তাদেরকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার করা হয়।

এ ব্যাপারে পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়- জেলার দোয়ারাবাজার উপজেলার পান্ডারগাঁও ইউনিয়নের চেঙ্গাইয়া গ্রামের মৃত সাজিদ আলীর ছেলে মানিক মিয়া তার বড় ভাইর স্ত্রী মাহিমা বেগমকে নিয়ে গতকাল শনিবার বিকেলে উপজেলা সদরের অবস্থিত উৎস হোটেল নামের একটি আবাসিক হোটেলে যায়। সেখানে দুজন স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে রাতে অবস্থায় করার জন্য আবাসিক হোটেলের ২য় তলায় একটি রুম ভাড়া নেয়।

কিন্তু দেব ও ভাবীর আচার-আচরণ দেখে হোটেলের কর্মচারীদের সন্দেহ হয়। পরে এই ঘটনাটি থানায় জানানো হলে সন্ধ্যায় পুলিশ এসে দেবর ভাবীকে আটক করে। এসময় তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে দুজনের অবৈধ সম্পর্কের ঘটনা বের হয়ে আসে। পরে ৫৪ ধারায় দেবর-ভাবীকে গ্রেফতার দেখিতে রাতেই সুনামগঞ্জ জেলহাজতে পাঠানো হয়। তবে এঘটনাটি তাৎক্ষনিক ভাবে জানাজানি হওয়ার পর পুরো উপজেলা জুড়ে ব্যাপাক আলোচনা ও সমালোচনার ঝড় উঠে।
দোয়ারাবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ নাজির আলম এঘটনার সত্যতা নিশ্চত করে সাংবাদিকদের জানান-অবৈধ ভাবে অসামাজিক কাজ করার জন্য আবাসিক হোটেলে আসা দেবর ও ভাবীকে গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় ৫৪ ধারায় গ্রেফতার করে রাতেই জেলহাজকে পাঠানো হয়েছে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.