1. zahersherpur@gmail.com : abu zaher Zaher : abu zaher Zaher
  2. Bijoybangla2008@gmail.com : bijoybangla :
  3. harezalbaki@gmail.com : Harez :
  4. mannansherpur81@gmail.com : mannan :
  5. wadut88@gmail.com : wadut :
রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ০২:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
রাস্তার পাশে রক্তাক্ত বৃদ্ধা , হাসপাতালে নেওয়ার পর মৃত্যু  বাগেরহাটে টিকটক করা নিয়ে দ্বন্ধে স্ত্রীকে হত্যা কাল থেকে ফেরিঘাটে বিজিবি মোতায়েন শাজাহানপুরে কিশোর গ্যাংয়ের দায় স্বীকারের পরও মুক্তি রাবিতে নিয়োগপ্রাপ্ত ১৪১ জনের যোগদান স্থগিত দেশের শক্তিশালী ঝড়ের আভাস কাবুলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিস্ফোরণ, নিহত ২৫ শেরপুরে ইফতার করে নামাজ পড়ার সময় বৃদ্ধার মৃত্যু মাদারীপুরে সুবিধা বঞ্চিতদের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ কাজিপুরে মাইজবাড়ী ইউনিয়নে হতদরিদ্রের মাঝে অর্থ বিতরণ শিবগঞ্জে বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থ্যতা কামনা দোয়া মাহফিল বাগেরহাটে ইউপি চেয়ারম্যানের রোশানল থেকে বাঁচতে এমপির হস্তক্ষেপ কামনা প্রকল্পের ভেতরে লেপ-তোশকে মোড়ানো নারীর মরদেহ রিকশা চালকের থেকে ৬০০ টাকা নেওয়ায় তিন পুলিশ বরখাস্ত সাকিব করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ, রিপোর্টের অপেক্ষায় মুস্তাফিজ খালেদার বিদেশে চিকিৎসা: আইনমন্ত্রণালয়ের মতামত আজ করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ অসহায় মানুষের পাশে বগুড়া চেম্বার অব কমার্স কাজিপুরে করোনাকালে অসহায়দের পাশে আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাক রাজাপুরে ১৮ দীর্ঘ মাস পরে হত্যার মামলা রেকর্ড লালপুরে ৩৩৩ নম্বরে কল করে খাদ্য সহায়তা পেল অসহায় কাবিল উদ্দিন

টিকার প্রয়োগ-বিপণনে সরগরম বিশ্ব

  • সর্বশেষ সংস্করণ : মঙ্গলবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৩ বার দেখা হয়েছে

গোটা বিশ্বজুড়ে মহামারি করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক টিকার অনুমোদনের পর রোগীদের ওপর প্রয়োগ শুরু হয়েছে। সাধারণ মানুষকে উৎসাহ দিতে রাষ্ট্রপ্রধানরাও টিকা নিতে শুরু করেছেন। ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, সৌদি আরব, সিঙ্গাপুর, চীন, রাশিয়াসহ বিভিন্ন দেশ টিকাদান কার্যক্রম শুরু করেছে।
চাহিদা অনুযায়ী উৎপাদনকারী কোম্পানিগুলোও টিকার চালান পাঠাচ্ছে বিভিন্ন দেশে। টিকা হাতে পেলেই আবার অনেক দেশ যেকোনো মুহূর্তেই প্রয়োগ কার্যক্রম শুরু করবে। বাংলাদেশেও নতুন বছরের শুরুতে টিকার কার্যক্রম শুরু হবে। এ উপলক্ষ্যে অগ্রাধিকার তালিকা তৈরির কাজ চলছে। তাছাড়া সাধারণ মানুষ কীভাবে টিকা পাবে সে ব্যাপারে কর্মপরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। তবে সব দেশে যে একই কোম্পানির টিকার অনুমোদন দিচ্ছে- এমনটা নয়।

Alal Group

করোনাভ্যাকসিনের মধ্যে বিশ্বব্যাপী আলোচিত এখন মার্কিন ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ফাইজার ও মর্ডানা উদ্ভাবিত টিকা। সেই সঙ্গে জার্মানের বায়োএনটেকের টিকাও ব্যবহারের অনুমোদন পেয়েছে। পাশাপাশি রাশিয়ার স্পুটনিক ভি, ভারতের কোভ্যাক্সিন প্রয়োগের বিষয়টিও চূড়ান্ত। চীনের উদ্ভাবিত টিকাও গেল জুলাই থেকে গোপনে বিশেষ ব্যক্তিদের দেয়া শুরু হয়েছে। তবে জানুয়ারি থেকে গণহারে দেয়া শুরু হবে।
বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে যুক্তরাজ্য মার্কিনের ফাইজার ও জার্মানির বায়োএনটেকের টিকা সর্বসাধারণের ব্যবহারের জন্য অনুমোদন দিয়েছে। দেশটিতে যারা সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে রয়েছেন শিগগিরই তাদের এই ভ্যাকসিন দেয়া শুরু হবে।
এর আগে নভেম্বরের মাঝামাঝিতে ফাইজার ও বায়োএনটেক প্রাথমিক তথ্য প্রকাশ করে জানায়, তাদের টিকা কোভিড-১৯ থেকে ৯০ শতাংশ সুরক্ষা দেয়। কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও নেই। এরপর ১৮ নভেম্বর দুই টিকার চূড়ান্ত পরীক্ষার প্রতিবেদন প্রকাশ করে। তাতে টিকার কার্যকারিতা ৯৫ শতাংশ বলে দাবি করা হয়। অনুমোদন দেয়ার পর যুক্তরাজ্যের ওষুধ ও স্বাস্থ্যসেবা পণ্যের নিয়ন্ত্রক সংস্থা এমএইচআরএও বলছে, এটি নিরাপদ।
ফাইজার ছাড়াও ইতোমধ্যে আরেক মার্কিন কোম্পানি মডার্না জানিয়েছে, তাদের উদ্ভাবিত ভ্যাকসিন চূড়ান্ত পরীক্ষায় প্রায় ৯৫ শতাংশ কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে। ইতোমধ্যে ফাইজার ও মডার্নার টিকার অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির তিন হাজার ৭০০টিরও বেশি স্থানে এ টিকা সরবরাহ করবে। বিশেষজ্ঞ প্যানেলের সদস্যরা ২০-০ ভোটে মডার্নার টিকার অনুমোদনে সুপারিশ করেছেন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ১৮ ও এর চেয়ে বেশি বয়সীদের জন্য টিকাটি ঝুঁকিপূর্ণ নয়। মডার্নার টিকা ৯৪ শতাংশ নিরাপদ ও কার্যকর বলে প্রমাণিত হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র সরকার কোম্পানিটির সঙ্গে ২০০ মিলিয়ন ডোজ টিকা কেনার চুক্তি করেছে। মডার্নার ভ্যাকসিন অনুমোদন পাওয়ার পর টুইটারে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। অন্যদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ও তার স্ত্রী কারেন পেন্সও লোকজনকে উৎসাহী করতে প্রকাশ্যে ফাইজারের টিকা নিয়েছেন।
যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য দেশের ধারাবাহিকতায় গেল সপ্তাহে এশিয়ার মধ্যে সিঙ্গাপুর প্রথম ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকার দিয়েছে অনুমোদন দিয়েছে। গেল সোমবার টিকার প্রথম চালান সিঙ্গাপুরে আসে।
এদিকে, গেল আগস্টে স্থানীয়ভাবে ব্যবহারের জন্য স্পুটনিক ভি নামের টিকার লাইসেন্স দিয়েছে রাশিয়া। তথ্য প্রকাশ না করলেও টিকার ব্যবহার শুরু করেছে দেশটি। টিকার উৎপাদনকারীদের দাবি অনুযায়ী, এটা ৯৫ শতাংশ কার্যকরী। বড় ধরণের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। যদিও টিকার গণপরীক্ষার কার্যক্রম এখনও চলছে। সম্প্রতি প্রথম দুটি ডোজ পাওয়ার জন্য নাম তালিকাভুক্ত করেছেন হাজারো মানুষ।
রাজধানী মস্কোর মেয়র সের্গেই সোবিয়ানিন জানান, স্কুল, স্বাস্থ্য সেবা আর সমাজকর্মীদের আগে টিকা দেয়া হবে। তবে যতো টিকা আসতে থাকবে, এই তালিকা আরও বড় হবে। অনলাইনে তালিকাভুক্তির মাধ্যমে শহরের ৭০টি স্থানে টিকা দেয়ার জন্য বুকিং দেয়া যাবে।

এদিকে, মধ্যপ্রাচ্যের প্রথম দেশ হিসেবে ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকার অনুমোদন দিয়েছে বাহরাইন। সম্প্রতি দেশটির স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ করোনায় আক্রান্তদের জরুরি চিকিৎসার জন্য এ অনুমোদন দিয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত প্রয়োগের খবর পাওয়া যায়নি।
মধ্যপ্রাচ্যে আরব দেশগুলোর মধ্যে সৌদির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকা দেয়ার কর্মসূচি শুরু করে দিয়েছে। একদিনেই দেড় লাখ মানুষ টিকার জন্য নিবন্ধনভুক্ত হয়েছেন। টিকার প্রথম চালান গেল সপ্তায় দেশটিতে এসে পৌঁছায়। টিকা পাওয়ার পরেই দেয়া শুরু হয়। সৌদিতে প্রথম টিকা নেয়া ব্যক্তিদের মধ্যে দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী তৌফিক আল-রাবিয়া রয়েছেন। টিকা নেয়ার পর তিনি দেশবাসীকে আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, ‘আমরা জনগণকে নিশ্চিত করছি যে, এই টিকা নিরাপদ।’
এদিকে, আগামী ২৭ ডিসেম্বর থেকে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের দেশগুলো টিকা দেয়া শুরু করবে। বায়োএনটেক ও ফাইজারের যৌথভাবে তৈরি টিকার চূড়ান্ত মূল্যায়ন করতে ইউরোপিয়ান মেডিসিনস এজেন্সি (ইএমএ) বৈঠকে বসার সিদ্ধান্ত নেয়ার পর এমন ঘোষণা দেয়া হলো।
চলতি বছর জুলাই থেকে করোনার ভ্যাকসিন দেয়া শুরু করে চীন। দেশটির কোম্পানি সিনোভ্যাক বায়োটেক জানায়, তাদের উদ্ভাবিত টিকা এরই মধ্যে কোম্পানির কর্মী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের ওপর প্রয়োগ করা হয়েছে। তবে সেটি দীর্ঘদিন গোপন ছিলো। চীনের ন্যাশনাল হেলথ কমিশন সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি সেন্টারের প্রধান ঝেং ঝংইউ জানিয়েছেন, স্বাস্থ্যকর্মী, সীমান্ত রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যসহ জরুরি ক্ষেত্রে কর্মরত লোকজনের অনেককেই কোভিড-১৯-এর ভ্যাকসিন দেয়া হচ্ছে। ইমার্জেন্সি ইউজের জন্য সেই ভ্যাকসিন জুলাই থেকে ব্যবহার করা হচ্ছে। তবে আগামী বছরের শুরুতে গণহারে টিকা দেয়া শুরু হবে।
বাংলাদেশে আগামী মে থেকে জুন মাসের মধ্যে সাড়ে ছয় কোটি ডোজ টিকা আসবে দেশে। জানুয়ারির শেষে বা ফেব্রুয়ারির প্রথমে দেড় কোটি মানুষের জন্য তিন কোটি টিকা আসবে। পরে আরও টিকা আসবে। সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর এ তথ্য জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। তিনি বলেন, টিকা দেয়ার জন্য প্রশিক্ষণ দেয়া শুরু হয়েছে।
এদিকে, ভারতে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন চেয়ে আবেদন করেছে প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউট। ভারতে টিকা এলে বাংলাদেশের মানুষও টিকা পাবে। দুটি দেশের বাজারে একই সময়ে টিকা দেয়ার ব্যাপারেসমঝোতা চুক্তি রয়েছে। তবে ইতোমধ্যে ভারতে তৈরি হওয়া করোনার টিকা কোভ্যাক্সিনের তৃতীয় ও চূড়ান্ত পর্যায়ের ট্রায়াল শুরু হয়েছে। তৃতীয় পর্যায়ে ২৬ হাজার ভলান্টিয়ারের শরীরে প্রয়োগ করা হবে কোভ্যাক্সিন।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে বিভিন্ন দেশে ১৯০টির বেশি করোনা টিকার প্রকল্প চালু রয়েছে। এর মধ্যে ১৪২টি টিকা এখনো প্রি-ক্লিনিক্যাল পর্যায়ে আছে। অর্থাৎ মানবদেহে এসব টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ এখনও শুরু হয়নি। ক্লিনিক্যাল (মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ) পর্যায়ে আছে ৫৬টি। এর মধ্যে প্রথম ধাপে আছে ২৯টি। এরই মধ্যে কানাডা, সৌদি আরব, আরব আমিরাত, সিঙ্গাপুর, ব্রাজিলসহ বেশ কিছু দেশে টিকার কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ বিজয় বাংলা
Theme Download From ThemesBazar.Com