1. zahersherpur@gmail.com : abu zaher Zaher : abu zaher Zaher
  2. Bijoybangla2008@gmail.com : bijoybangla :
  3. harezalbaki@gmail.com : Harez :
  4. mannansherpur81@gmail.com : mannan :
  5. wadut88@gmail.com : wadut :
গ্রামে বাড়িঘর ও ধর্মীয় স্থাপনা তৈরি করতে নিতে হবে ইউনিয়ন পরিষদের অনুমতি - বিজয় বাংলা
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:২৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
বান্দরবানে পর্যটকবাহী গাড়িতে সন্ত্রাসীদের গুলি, আহত ৫ কমিশনার অব প্রিজন আহমেদ ফুলহুর সাথে রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রয়াত মোহাম্মদ নাসিমের কবর জিয়ারত শাজাহানপুরে বাসের ধাক্কায় সেনা সদস্য নিহত শেরপুুরে ফুটবল খেলোকে কেন্দ্র করে মারপিট আহত-৪ শেরপুরে ভাতিজিকে উত্যক্তের প্রতিবাদ করায় ছুরিকাঘাতে মৃত্যুর মুখে দুই চাচা সরকার পতন একদফা আন্দোলনের জন্য নেতাকর্মীদের প্রস্তুতি নেওয়ার আহবান-সাবেক এমপি লালুর কুষ্টিয়ায় কুখ্যাত মাদক সম্রাট শাহিন  আটক বাগেরহাটে ইউপি নির্বাচনে সহিংসতার আশঙ্কায় ভোটাররা তানোরে গৃহবধূকে উত্যাক্তের প্রতিবাদ করায় স্বামী শ্বশুড়ীকে মারধর এহসান গ্রুপের প্রতারকরা ধর্মব্যবসায়ী : মোমিন মেহেদী মধুখালীতে বজ্রপাত প্রতিরোধে তালবীজ রোপণ মধুখালীতে সড়ক ডিভাইডার মৃত্যুর ফাঁদ মহাদেবপুর এখন অবহেলিত জনপদ ভূঞাপুরে মরা বাঁশ ও গাছের মধ্যে দিয়ে বিদ্যুতের লাইন ।। প্রানহানীর আশংকা বিরামপুরে বৈধ কাগজপত্র থাকার পরেও ভুমি প্রশাসন কর্তৃক হয়রানি ।। প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র আন্দোলন পরিচালনা কমিটির চাকুরীর দাবীতে ঘন্টা ব্যাপি মানববন্ধন কাজিপুরে ডিমের বাজারে অস্থিরতা! নন্দীগ্রামে সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেপ্তার নন্দীগ্রাম উপজেলা প্রেসক্লাবের বকুল (সভাপতি)-ফারুক (সাধারন সম্পাদক)

গ্রামে বাড়িঘর ও ধর্মীয় স্থাপনা তৈরি করতে নিতে হবে ইউনিয়ন পরিষদের অনুমতি

  • সর্বশেষ সংস্করণ : সোমবার, ৩০ আগস্ট, ২০২১
  • ১৯ বার দেখা হয়েছে

।। বিজয় বাংলা অনলাইন ।।
এখন থেকে ইচ্ছা করলেই গ্রামে নিজের জমিতে নতুন করে ঘরবাড়ি নির্মাণ করা যাবে না। এ জন্য স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদকে (ইউপি) জানাতে হবে। গ্রামে অপরিকল্পিতভাবে অবকাঠামো নির্মাণ ঠেকাতে ইউনিয়ন পর্যায়ে মাস্টারপ্ল্যান প্রণয়নের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এই মাস্টারপ্ল্যান তৈরি না হওয়া পর্যন্ত নতুন করে বাড়িঘর ও ধর্মীয় স্থাপনা তৈরি করতে ইউনিয়ন পরিষদকে অবহিত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি এ নির্দেশনা দিয়ে সব জেলা প্রশাসককে (ডিসি) চিঠি দিয়েছে স্থানীয় সরকার বিভাগ।
শহরের মতো গ্রামকেও পরিকল্পিতভাবে গড়ে তুলতে এ সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘আমার গ্রাম-আমার শহর কনসেপ্ট বাস্তবায়নে কাজ করছে সরকার। এ কারণে শহরের মতো গ্রামকেও পরিকল্পিতভাবে গড়ে তোলা হবে। গ্রামে কেউ নতুন বাড়িঘর বা স্থাপনা তৈরি করতে চাইলে তাকে অবশ্যই সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদকে অবহিত করতে হবে। একটি নির্দিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করতে না পারলে গ্রামে অপরিকল্পিতভাবে অবকাঠামো নির্মাণ ঠেকানো যাবে না। এটি কার্যকর হলে কৃষিজমিরও সুরক্ষা হবে।’ ডিসিদের কাছে পাঠানো ১৯ আগস্টের ওই চিঠিতে বলা হয়, স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ অনুযায়ী ইউনিয়ন পরিষদের ৩৯টি দায়িত্ব রয়েছে। এর মধ্যে একটি- ইউনিয়নে নতুন বাড়িঘর, দালান নির্মাণ ও পুনর্নির্মাণ এবং বিপজ্জনক দালান নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব ইউনিয়ন পরিষদের ওপর অর্পিত। যত দিন ইউনিয়ন পর্যায়ে মাস্টারপ্ল্যান তৈরি না হবে, তত দিন পর্যন্ত বাড়িঘর ও ধর্মীয় স্থাপনা তৈরির আগে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদকে অবহিত করতে হবে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ডিসিদের অনুরোধ জানানো হয় চিঠিতে।
এর আগে ৫ মে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছিলেন, গ্রামগঞ্জে বাসা-বাড়ি, দোকানপাট, মসজিদ-মাদরাসা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল, ক্লাব কিংবা অফিস-আদালতসহ যে কোনো অবকাঠামো নির্মাণ করতে অবশ্যই একটি যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে অনুমতি নিতে হবে। এই অনুমতির ক্ষেত্রে ইউনিয়ন পরিষদকে (ইউপি) দায়িত্ব দেওয়া যেতে পারে। রাজধানীর মিন্টো রোডের সরকারি বাসভবন থেকে সেভ দ্য চিলড্রেন ও বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্স আয়োজিত ‘মেয়র সংলাপ : নিরাপদ, টেকসই ও অন্তর্ভুক্তিমূলক নগর’ বিষয়ক ভার্চুয়াল সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
ইউনিয়ন পরিষদের সক্ষমতা নিয়ে মন্ত্রী বলেন, ইউপির সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন আসতেই পারে। কিন্তু একটি নির্দিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করতে না পারলে গ্রামে অপরিকল্পিতভাবে অবকাঠামো নির্মাণ ঠেকানো যাবে না। ইউপিকে এ বিষয়ে ক্ষমতায়ন করার পর তারা যাতে ক্ষমতার অপব্যবহার করতে না পারে সে জন্য উপজেলা পরিষদকে সংযুক্ত করা হবে। কেউ যদি ক্ষমতার অপব্যবহার করে তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কোনো অবস্থায় অনুমতি ছাড়া কৃষিজমিতে বাড়িঘর বা অন্য কোনো প্রতিষ্ঠান/স্থাপনা নির্মাণ করতে দেওয়া যাবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘আমার গ্রাম-আমার শহর’ দর্শনের ফলে শহরের সব সুযোগ-সুবিধা প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে পৌঁছে দিচ্ছে সরকার। তাই এখন থেকেই গ্রামকে পরিকল্পিতভাবে গড়ে তুলতে হবে। জানা গেছে, বর্তমানে দেশে ভূমি উন্নয়নকাজের জন্য রাজউকসহ অন্যান্য উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, সিটি করপোরেশন, পৌরসভার অনুমোদন নিতে হয়। নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা আইন, ২০১৭ অনুযায়ী শুধু গ্রামেই নয়, উন্নয়নকাজে দেশের যে কোনো জায়গায় ভূমি ব্যবহার করতে হলে সরকারি কর্তৃপক্ষের ছাড়পত্র নিতে হয়। এটি লঙ্ঘন করলে সর্বোচ্চ পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদন্ড এবং সর্বোচ্চ ৫০ লাখ টাকা অর্থদন্ডের বিধান রয়েছে। সারা দেশে ভূমি ব্যবহারে শৃঙ্খলা আনার জন্যই এ আইন করা হয়েছে।

Alal Group

সুত্র বাংলাদেশ প্রতিদিন

Alal Group

সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ বিজয় বাংলা
Theme Download From ThemesBazar.Com
RSS
Follow by Email