তানোর পৌর নির্বাচনে কে হচ্ছেন নৌকার কান্ডারী!

৪৭

মনিরুজ্জামান মনি তানোর :  তানোর পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা হয়েছে গত রবিবার ৩রা জানুয়ারীতে চতুর্থ ধাপে।তফসিল ঘোষনার পর থেকে নড়েচড়ে বসেতে আবার শুরু করেছেন সম্ভাব্য তানোর পৌর নির্বাচনে এক ডজন দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী। তবে আলোচনায় আছেন আ”লীগের পৌর সভাপতি ইমরুল হক ও আবুল বাসার সুজন।এদের দুইজনের একজন দলীয় মনোনয়ন পাবে, এ ব্যাপারে পৌর বাসী শতভাগ নিশ্চিত।গত পৌর নির্বাচনে বিএনপির মেয়র মিজানুর রহমানের কাছে মাত্র ১৩ভোটের ব্যাবধানে পরাজিত হয়েছেন পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ইমরুল হক।একারনে পৌরবাসী আবারো আশায় বুক বেধেছেন, তাকে আরেকটি বার সুযোগ করে দিবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।এর পরেই যার নাম রেখেছেন পৌরবাসী তিনি হলেন আবুল বাসার সুজন।তিনি স্থানীয় সাংসদ ওমর ফারুক চৌধুরীর নিকটতম আত্নীয় এবং তার হাত ধরেই তিনি গত ১বছর আগে তানোর ভোটের রাজনীতির মাঠে আবির্ভাব ঘটে।তিনি গত এক বছর ধরেই তানোর পৌরসভার গুবিরপাড়া গ্রাম ব্যাতীত প্রত্যেকটি গ্রামে সাধারন ভোটারদের সাথে সক্রিয় রয়েছেন।

এই বিবেচনায় তিনি ও তানোর পৌরসভার নৌকার প্রার্থী হতে পারেন।বাঁকি দশজন প্রার্থী দলীয় মনোনয়নে পাওয়ার আশায় আটকে আছেন, রাজনীতির মাঠে কিংবা সাধারন ভোটারদের দরজায় কেউ কড়া নাড়েননি। এরা হলেনতানোর পৌর আওয়ামীলীগর সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়াজির হাসান প্রতাব সরকার,পৌর যুবলীগের সভাপতি রাজিব সরকার হিরো,সাধারন সম্পাদক ওহাব সরদার,তানার উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন,সাবেক ছাত্রলীগের সভাপতি রবিন সরকার,সাবেক সাধারন সম্পাদক মৃদুল কুমার ঘোষ,সাবেক পৌর যুবলীগের সভাপতি ইকবাল হোসেন,ছাত্রলীগ নেতা আরিফুজ্জামান বাচ্চু,কৃষকলীগ নেতা আরব আলী,তানোর পৌর আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক আঃআহাদ।তবে মনোনয়ন প্রত্যাশী অনেকেই বলেন,তানোরের স্থানীয় বাসিন্দাকে দেওয়া হলে তারা বেশি খুশি হবেন এবং আরো বলেন নৌকা প্রতীক যাকেই দিবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তার সাথে হাতে হাত রেখে নৌকার বিজয় না পর্যন্ত তারা ঘরে ফিরবেন না বলে জানান। এ বিষয়ে তানোর পৌরসভার আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী তানোর পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ইমরুক হক বলেন, ২০১৬সালে পৌর নির্বাচনে বিএনপির মেয়র মিজানুর রহমানের কাছে মাত্র ১৩ভোটের ব্যাবধানে পরাজিত হয়েছি।আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমি আরেকটিবার সুযোগ চাই।তিনি যদি আমার হাতে এবারনৌকা তুলে দেন তাহলে তানোর পৌরসভাতে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে পারবো বলে আশা ব্যাক্ত করেন।এ বিষয়ে তানোর পৌরসভার আরেক হেবিয়েট আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী আবুল বাসার সুজন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে তানোর পৌরসভার টিকিট দিলে আমি শতভাগ আশাবাদী তানোর পৌরসভার নৌকা প্রতীকের মেয়র নির্বাচিত হয়ে রাজশাহী১তানোর-গোদাগাড়ীর সংসদ সদস্য আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী,তানোর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাধীনতার প্রতীক নৌকা উপহার দিতে চাই।
তবে তারা এ ও বলেন একমাত্র মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলতে পারবেন আমাদের দুইজনের মধ্যে তানোর পৌর প্রার্থী দিচ্ছেন না আমাদের বাইরে কাউকে তানোর পৌর আওয়ামামীলীগের মনোনয়ন দিচ্ছেন,এটা জানার জন্য আগামী ১৪/১৫জানুয়ারি পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।কারন তফসিল অনুযায়ী মনোনায়ন জমার শেষ তারিখ ১৭ জানুয়ারি, বাছাই ১৯জানুয়ারি ও প্রত্যাহার ২৬ জানুয়ারি এবং ভোটগ্রহন ১৪ ফেব্রুয়ারী।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.