বোচাগঞ্জ নুর আলম নিজের শরীরকেই দোকান বানিয়ে চালাচ্ছেন সংসার

৫৭

মোঃ আশিকুর ইসলাম বোচাগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি॥
দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলার মোঃ নুর আলমের শরীরটাই যেন একটি চলন্ত দোকান। এই মানব দোকান দিয়েই চলছে তার ৪ সদস্যের সংসার। সেতাবগঞ্জ পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের শহীদপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মোঃ নুর আলম । তার বাবা মোঃ ইসরাফিল আলমের সেতাবগঞ্জ বাজরে একটি কসমেটিকের দোকাল ছিল। বাবা মারা যাবার পর ছোট ভাইকে দোকান বুঝিয়ে দিয়ে নিজের শরীরটাকেই দোকান বানিয়ে বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে নানা জিনিসপত্র বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছেন মোঃ নুর আলম। সদা হাস্যোজ্জল মোঃ নুর আলমকে কেমন আছো জিজ্ঞেস করলেই বলে উঠেন আল্লাহ খুব ভাল রেখেছেন। নুর আলমের ১ ছেলে ১ মেয়ে । বড় ছেলে ধনতলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেনীতে লেখা পড়া করছে। মেয়ে একই স্কুলে তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্রী।

রোদ ঝড় বৃষ্টি আর কনকনে শীতকে উপেক্ষা করে প্রতিদিন বিভিন্ন হাট বাজার রেল ষ্টেশন, বাসষ্ট্যান্ড সহ নানা জায়গায় ঘুরে ঘুরে বিক্রি করছে তার শরীরে সাজানো নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র। নুর আলম কে প্রশ্ন করেছিলাম, আপনার ৪ সদস্যের সংসার আবার ছেলে মেয়ে স্কুলে লেখা পড়া করছে । সংসার চালাতে আপনার কোন সমস্যা হচ্ছে না ? তিনি হাসতে হাসতে উত্তর দেন, ভাই কষ্ট হলেও আল্লাহ ভাল রেখেছেন। যখন শরীরটা ভাল থাকে না তখন তো আর বের হতে পারিনা, তখন কষ্ট করেই সংসার চালাতে হয়, কি আর করার।

বোচাগঞ্জের নুর আলম আদর্শ্যরে এক নতুন উদাহারণ, কোন রকম কারো সহযোগীতা ছাড়াই নিজের যতসামান্য পুজি দিয়েই তার শরীরটা কে বানিয়েছেন এক চলন্ত দোকান। ঘুরে বেড়ায় পথ থেকে পথে প্রান্তে। সারা দিনের বিক্রির লভ্যাংশ দিয়েই কোন মতে চলছে তার সংসার। সংসার চালাতে যত কষ্টই হোক, এই কষ্টের ভাগ সে কাউকে দিতে রাজি নয়। মোঃ নুর আলমের স্বপ্ন, একদিন তার ছেলে মেয়ে লেখা পড়া শিখে অনেক বড় হবে। আজকের এতো পরিশ্রম সেদিনই স্বার্থক হবে।  আমরাও চাই মোঃ নুর আলমের স্বপ্ন পূরণ হোক। তার ছেলে মেয়ে বড় হয়ে তাদের বাবা মোঃ নুর আলমের মুখ উজ্জল করুক।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.