ক্যান্সারে আক্রান্ত জবি শিক্ষার্থী লালপুরের আহম্মদ আলী বাঁচতে চায়

১২

লালপুর (নাটোর) প্রতিনিধিঃ
নাম তার আহম্মদ আলী। জন্ম নাটোরের লালপুর উপজেলার মোহরকয়া গ্রামে। বাবা খোরশেদ আলম শ্রমিকের কাজ করেন স্থানীয় ইট ভাটায়। দুই ভাইয়ের মধ্যে সে বড়। ছোট ভাই স্থানীয় কলেজে এইচএসসি ২য় বর্ষের ছাত্র। আহম্মদ আলী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের মাস্টার্স ২য় সেমিস্টার এর শিক্ষার্থী। আকাশসম স্বপ্ন নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ে। বাবা তার মাথার ঘাম পায়ে ফেলে পড়ার খরচ যোগাতেন। পড়াশোনা শেষ করে হাল ধরবেন পরিবারের,পরিবার দেখবে সুখের মুখ, এমনটাই আশা ছিল পরিবারের। কিন্তু কোলন ক্যান্সার নামক মরণব্যাধি তার স্বপ্নের আকাশে ঘন মেঘ হয়ে বাসা বিধেছে। কোলন ক্যান্সার নামক মরণব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে আহম্মদ আলী এখন ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে সার্জারী বিভাগে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে।

আহম্মদ আলীর বাবা খোরশেদ আলম জানান, ২০২০ সালের ১০ ডিসেম্বর পেটের সমস্যা নিয়ে ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি হন। এরপর অবস্থার উন্নতি না হলে ১৩ ডিসেম্বর ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেদিনই জরুরী ভিত্তিতে অপারেশন করা হয়। এতে পেটে একাধিক টিউমার অপারেশন করা হয়। পরবর্তীতে সেই টিউমারের ‘বায়োপসি টেষ্ট করলে সেখানে কোলন ক্যান্সার কোষ সনাক্ত করা হয়। এতে তার অফবহড়পধৎপরহড়সধ, মৎধফব-২ধরা পড়ে।

এখন তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন। কর্তব্যরত চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী তার প্রায় ৮ থেকে ১০ টি কেমো সাইকেল লাগতে পারে। প্রতি কেমোতে প্রায় ৮০ হাজার টাকা এবং অন্যান্য পরীক্ষা নিরীক্ষাসহ প্রায় ১২ লাখ টাকা লাগবে।
তিনি আরো জানান, ছেলের চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থের যোগান দেয়া তার পক্ষে সম্ভব নয়। অশ্রু শিক্ত নয়নে তার চিকিৎসার জন্য সকলের কাছে সাহায্যের আবেদন করেছেন তিনি। সমাজের হৃদয়বান ও বিত্তবানরা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলে হয়তো চিকিৎসা পেয়ে বেঁচে ফিরবে এক মেধাবী প্রাণ, বাবা মা পাবে তাদের প্রিয় সন্তানকে, আবার নতুন করে স্বপ্ন দেখবে সবাই। আহম্মদ আলীকে সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা: হিসাবের নাম: মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, হিসাব নম্বর: ৪৯০৮০৩৪০৪২১২৭, সোনালী ব্যাংক, লালপুর শাখা, নাটোর। বিকাশ-০১৭২৮৩১৫৬৫৬। মোহরকয়া, বিলমাড়ীয়া, লালপুর, নাটোর।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.