অক্সফোর্ড-এস্ট্রাজেনেকার টিকা অনুমোদন দিয়েছে বৃটেন

১৯

অক্সফোর্ড-এস্ট্রাজেনেকার করোনা ভাইরাসের টিকা অনুমোদন দিয়েছে বৃটেন। এর ফলে বৃটেনে করোনা ভাইরাসের টিকা দেয়ার কার্যক্রম গতি পাবে বলে আশা করা হচ্ছে। গণহারে টিকা দিয়ে সেখানে জীবনযাত্রাকে স্বাভাবিক করার চেষ্টা হচ্ছে। এরই মধ্যে ফাইজার/বায়োএনটেকের টিকা সবার আগে অনুমোদন দিয়ে বৃটেনে জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োগ শুরু হয়েছে। তবে সেই টিকা সবাইকে দেয়া হচ্ছে না। শুধু ঝুঁকিতে থাকা মানুষদের জরুরি ভিত্তিতে দেয়া হচ্ছে সেই টিকা। এরই মধ্যে অক্সফোর্ড-এস্ট্রাজেনেকার টিকা অনুমোদন দিল সরকার। এই টিকার ১০ কোটি ডোজ কেনার অর্ডার দিয়ে রেখেছে বৃটিশ সরকার।
বৃটেনের জনসংখ্যা ৫ কোটি প্রায়। ফলে এই টিকা দিয়ে সবাইকে টিকাদান সম্ভব হবে বলে আশা করা হচ্ছে। অক্সফোর্ড-এস্ট্রাজেনেকার এই টিকা মেডিসিন নিয়ন্ত্রকরা অনুমোদন দেয়ার অর্থই হলো এটা একই সঙ্গে নিরাপদ ও কার্যকর। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

এ বছর প্রথম কয়েক মাসে অক্সফোর্ড-এস্ট্রাজেনেকা এই টিকা তৈরি করে। প্রথমবারের মতো তা এপ্রিলে স্বেচ্ছাসেবকদের ওপর প্রয়োগ করা হয়। তারপর থেকে কয়েক হাজার মানুষের ওপর ব্যাপক হারে ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা চালানো হয়েছে। করোনা মহামারির মধ্যে তারা যে গতিতে এই টিকা আবিষ্কার করেছে, তাতে সবার আগে এগিয়ে ছিল তাদের টিকা। সারাবিশ্বে আশা জাগিয়ে তুলেছিল এই টিকা। কিন্তু পরীক্ষায় ফাইজার ও মডার্নার টিকার চেয়ে পিছিয়ে পড়ে অক্সফোর্ডের টিকা। ফাইজার ও মডার্নার টিকা শতকরা প্রায় ৯৫ ভাগ কার্যকর প্রমাণিত হলেও, অক্সফোর্ডের টিকা শতকরা প্রায় ৭০ ভাগ কার্যকর বলে প্রমাণ মেলে। ফলে অনেকটাই পিছিয়ে পড়ে অক্সফোর্ড। ততক্ষণে বৃটেনে জায়গা করে নেয় ফাইজারের টিকা। যুক্তরাষ্ট্র, সৌদি আরব, কানাডা সহ অনেক দেশ ব্যবহার শুরু করে এই টিকা। ওদিকে যুক্তরাষ্ট্র সম্প্রতি মডার্নার টিকা জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমোদন দিয়েছে। বৃটেনে প্রথম ফাইজারের টিকা অনুমোদন দেয়ার পর অনুমোদন দিল অক্সফোর্ডের টিকা। ফলে বৃটেনে অক্সফোর্ডের টিকা এ প্রতিযোগিতার দৌড়ে দ্বিতীয় অবস্থানে। বৃটেনে প্রথম করোনার টিকা দেয়া হয় মার্গারেট কিনানকে। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ৬ লাখ মানুষকে ফাইজারের টিকা দেয়া হয়েছে। এর সঙ্গে যুক্ত হলো অক্সফোর্ডের টিকা। ফলে টিকাদানের এই গতি এখন বৃদ্ধি পাবে। কারণ, অক্সফোর্ডের টিকা দামে সস্তা এবং বহন করাও সহজ। এই টিকা সাধারণ ফ্রিজে সংরক্ষণ করা যায়। অন্যদিকে ফাইজারের টিকা সংরক্ষণ করতে হয় মাইনাস ৭০ থেকে মাইনাস ৮০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.