শেরপুরে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ

0 49

আব্দুল ওয়াদুদ :   নিরাপদ দেশ গড়ি, নারী নির্যাতন বন্ধ করি, এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারা দেশের ন্যায় বগুড়ার শেরপুরে জেলা পুলিশের আয়োজনে এবং শেরপুর থানা পুলিশের উদ্যোগে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল ১০টায় পৌরসভার শিশু পার্ক প্রাঙ্গণে শেরপুর উপজেলা কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আসিফ ইকবাল সনির সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর-ধুনট) মোঃ গাজিউর রহমান।

প্রধান অতিথি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর-ধুনট) মোঃ গাজিউর রহমান বলেন,  যারা এতদিন নারীদের অসম্মান করেছেন, উত্যক্ত করেছেন, শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করেছেন এবং ধর্ষণকারী বা ধর্ষণের মনোভাব রাখেন  তাদের জন্য কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। বিট পুলিশিংয়ের এই সমাবেশের মাধ্যমে তাদের এই বার্তা জানানো হচ্ছে। ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে নারীদের নির্যাতন প্রতিরোধে এমন সিদ্ধান্ত যুগোপযোগী। দেশের শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষদের মাঝে যে আওয়াজ উঠেছে তাতে একমত বাংলাদেশ পুলিশ। পাশাপাশি পরিবারদের তাদের সন্তানদের প্রতি আরও সচেতন হতে বলেন তিনি।

সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আসিফ ইকবাল সনি বলেন, দেশের আর্থসামাজিক, শিক্ষা ব্যবস্থায় আরও উন্নত করতে হবে। প্রয়োজনে আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা ঢেলে সাজাতে হবে। এ ছাড়া পরিবারদের সচেতনতা বাড়াতে হবে। আমাদের সন্তানেরা কোথায় যায়, কী করে এসব জানতে হবে। তাদের সাথে নৈতিকতা, নারীদের সম্মান করার বিষয়ে আলোচনা করতে হবে।

বিট পুলিশিং এর সদস্য সচিব গোলাম হোসেন ও সংগ্রাম কুণ্ডু’র সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শেরপুর পৌর মেয়র আব্দুস সাত্তার, সাবেক পৌর মেয়র জানে আলম খোকা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহ জামাল সিরাজী, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবীব আম্বিয়া, শহর আ’লীগের সভাপতি মকবুল হোসেন, শেরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও পুলিশ পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ওবাইদুর রহমান। এতে আরো বক্তব্য রাখেন, শেরপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র জানে আলম খোকা, শেরপুর সরকারী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আল মাহমুদ, শেরপুর সরকারি ডিজে হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক আখতার উদ্দিন, শেরপুর শহীদ কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ হাফিজুর রহমান, শিক্ষিকা সোহেলা পারভীন, গৃহিণী হাফিজা খাতুন, শেরপুর পৌরসভার কাউন্সিলর মুকুল হোসেন, শিক্ষার্থী তাসলিমা আক্তার। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, পুলিশ ফাঁড়ী ইনচার্জ হারুন অর রশিদ, বিট পুলিশিং এর সদস্য সচিব ফরহাদুজ্জামান শাহিন, আবু বকর সিদ্দিক, সৌরভ সুমন, কারিমুল ইসলাম, মাসুদ রানা লিটন প্রমুখ।

এতে সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ। তিনি শেরপুর পুলিশিংয়ের বিভিন্ন অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরেন। আয়োজিত এই সমাবেশ থেকে জানা যায় শেরপুর উপজেলায় গত ৯ আগস্ট পুলিশিং কার্যক্রম শুরু হয়। উপজেলার দশটি ইউনিয়নসহ পৌর শহরের আরো তিনটি এই সংগঠনের কার্যালয় রয়েছে। গত তিন মাসে স্থানীয়ভাবে বিভিন্ন বিরোধ নিয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছে ৪৩০ টি। সালিশ নিষ্পত্তি হয়েছে ৯৮ টি।

Loading...