ফের অক্সফোর্ডের করোনা ভ্যাকসিন পরীক্ষা শুরু

0 4

কয়েকদিন বাদেই ফের অক্সফোর্ডের করোনা ভ্যাকসিন পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এর আগে একজন নারী স্বেচ্ছাসেবকের অসুস্থ হয়ে পড়ার কথা জানিয়ে ভ্যাকসিন পরীক্ষা সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়। পরীক্ষা পুনরায় চালুর বিষয়টি জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ডেইলি সান ইউকে।
শনিবার মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গের খবরে বলা হয়েছে, যুক্তরাজ্যের মেডিসিন্স হেলথ রেগুলেটরি অথরিটি (এমএইচআরএ)-এর অনুমোদন পাওয়ার পর কয়েকদিন স্থগিতের পর পুনরায় এই পরীক্ষা শুরু হলো। করোনার সম্ভাব্য টিকাগুলোর মধ্যে প্রথমসারিতে রয়েছে অক্সফোর্ডের টিকা। পরীক্ষা চলাকালীন ব্রিটেনে এক নারী স্বেচ্ছাসেবক অজ্ঞাত রোগে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তারপরই সাময়িক সময়ের জন্য স্থগিত করা হয় টিকার পরীক্ষা। মাঝপথে পরীক্ষা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় করোনা প্রতিষেধক ঘিরে আশঙ্কা তৈরি হয়। তবে শেষপর্যন্ত ফের ট্রায়াল পর্ব শুরু হওয়ায় সেই আশঙ্কা আপাতত দূর হলো।
এক বিবৃতিতে অক্সফোর্ড জানিয়েছে, ৬ সেপ্টেম্বর নিরাপত্তা ইস্যুতে টিকার পরীক্ষা স্থগিত করার পর স্বতন্ত্র পর্যালোচনার পর যুক্তরাজ্যের টিকা নিয়ন্ত্রক সংস্থা মেডিসিন্স হেলথ রেগুলেটরি অথরিটি ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল পুনরায় শুরুর সুপারিশ করেছে।

এর আগে ১০ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার) এই ভ্যাকসিনের প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান অ্যাস্ট্রাজেনেকা জানিয়েছে, টিকা গ্রহণের পর জটিল স্নায়বিক সমস্যায় পড়েছিলেন ওই নারী স্বেচ্ছাসেবক। তবে ক্রমশ তিনি সুস্থ হয়ে উঠছেন। স্বাস্থ্য বিষয়ক মার্কিস সংবাদমাধ্যম স্ট্যাট নিউজ-এর এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।
৮ সেপ্টেম্বর (মঙ্গলবার) তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের মাঝে এক স্বেচ্ছাসেবকের অসুস্থ হয়ে পড়ার খবর সামনে আসায় পরীক্ষা সাময়িকভাবে স্থগিত ঘোষণা করতে বাধ্য হয় অ্যাস্ট্রাজেনেকা। সে সময় বিবৃতিতে জানানো হয়, সুরক্ষার জন্যই টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ বন্ধ রাখা হয়েছে। সমস্যা খতিয়ে দেখেই পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। স্ট্যাট নিউজের প্রতিবেদনে সে সময় বলা হয়, ১০ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার) সংস্থার সিইও পাস্কাল সরিয়ট বিনিয়োগকারীদের সঙ্গের এক অভ্যন্তরীণ বৈঠকে বলেছেন, টিকা দেওয়ার কিছুদিন পরেই স্পাইনাল ইনফ্ল্যামেশন হতে শুরু করে ওই নারীর। তীব্র প্রদাহ তৈরি হয় স্নায়ুর কোষে। ধারণা করা হচ্ছে তিনি ট্রান্সভার্স মায়েলিটিস রোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন।
সরিয়ট জানিয়েছেন, ওই নারী ক্রমশ সুস্থ হয়ে উঠছেন এবং দ্রুত তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়ার কথা রয়েছে। এদিকে অ্যাস্ট্রজেনেকার মুখপাত্র ম্যাথিউ কেন্ট বলেছেন, যে নারীর রোগ ধরা পড়েছিল তিনি এখন অনেকটাই সুস্থ। কী কারণে ওই নারীর শরীরে এমন রোগ দেখা দিয়েছিল তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে

Loading...