ক্যামিওতে রোনালদোর জাদু, পর্তুগালের গোল উৎসব

0 15

উয়েফা নেশনস লিগের ম্যাচে মাঠে নামার আগে পর্তুগাল আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে মুখোমুখি হয় অ্যান্ডোরার বিপক্ষে। অ্যান্ডোরার জালে এদিন গুনে গুনে সাত গোল দিয়েছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল। ঘরের মাঠে অ্যান্ডোরার বিপক্ষে মাঠে নামার আগে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে বিশ্রাম দেয় ফার্নান্দো সান্তোস।
অবশ্য কেবল রোনালদো একাই নয়, সেই সঙ্গে জাও ফেলিক্স, ফার্নান্দো সিলভা, ব্রুনো ফার্নান্দেজদের মতো তারকাদেরও বিশ্রাম দিয়েছিলেন পর্তুগাল কোচ। জুভেন্টাসের হয়ে শেষ ম্যাচে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো পায়ে কিছুটা অস্বস্তি নিয়ে মাঠ ছাড়লে শঙ্কায় পড়ে তাঁর পর্তুগালের হয়ে খেলা। তবে শঙ্কা কাটিয়ে প্রথম ম্যাচের শেষ দিকেই তাকে মাঠে দেখা যায়।

অ্যান্ডোরার বিপক্ষে ম্যাচের ৮ মিনিটের মাথায় পর্তুগালকে প্রথম গোল এনে দেন পেড্রো নেটো, আর এই শুরুর পর পর্তুগাল থামে ম্যাচের ৮৮ মিনিয়ে গিয়ে। ২৯ মিনিটে পোলিনহো গোল করে ব্যবধানে ২-০ করে, আর প্রথমার্ধের ইতি ওই ২-০ গোলে এগিয়ে থেকেই। এরপর ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে তাণ্ডব শুরু পর্তুগিজদের।

বিরতি থেকে ফিরে ম্যাচের ৫৬ মিনিটে রেনাটো সানচেজের গোলে ৩-০’তে এগিয়ে যায় পর্তুগাল এরপর একে একে গোল করেন পোলিনহো, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো এবং জাও ফেলিক্স। ম্যাচের ৬১ মিনিটে পোলিনহোর দ্বিতীয় গোলে পর্তুগাল লিগ নেয় ৪-০’তে। তারপর ম্যাচের ৭৬ মিনিটে এমিলি গার্সিয়ার আত্মঘাতি গোলে ৫-০ তে এগিয়ে ইউরোপ চ্যাম্পিয়নরা। তবে এখানেই থামেনি পর্তুগাল শেষ দিকে এসে ম্যাচের ৮৫ মিনিটে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। এই গোলের মাধ্যমে জাতীয় দলের হয়ে ১০২ গোলের দেখা পেলেন পর্তুগীজ এই যুবরাজ। পরে ৮৮ মিনিটে জাও ফেলিক্সের দ্বারা আরেকটি গোল করিয়ে পর্তুগালকে ৭-০ গোলের জয় এনে দেয় রোনালদো।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না।