কাউনিয়ার ৫শত এতিম শিশু পরিবার এখন স্বাবলম্বী

0 14

কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি :  রংপুরের কাউনিয়ায় বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ইসলামিক রিলিফের সহায়তায় ৫শত পরিবার সাবলম্বী হয়েছে। উপজেলার অসহায় এতিম পরিবারের টেকসই উন্নয়ন ও সামাজিক মর্যাদা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাজ করছে ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশ। পরিবারের উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি, আয়বর্ধনমূলক কর্মসৃষ্টি, শিশুদের অধিকার, সুরক্ষা, শিক্ষা ও এতিম পরিবারের জীবন মান উন্নয়নে সংস্থাটি কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এ ছাড়াও এতিম শিশুদের পড়াশোনার জন্য প্রতি মাসে ৫০০ টাকা এবং পরিবারের সচ্ছলতা আনয়নে এককালীন ১৪ হাজার টাকা নগদ অর্থ প্রদান করেছে।

সরেজমিন পরিদর্শনকালে জানা যায়, কাউনিয়া উপজেলার হরিশ্বর গ্রামের রিনা বেগমের স্বামী মারা যাওয়ায় দুই সন্তানকে নিয়ে বিপাকে পড়েন। টুপির কাজ করে সন্তানদের ভরণপোষণ ও পড়াশোনার খরচ চালাতে না পেরে বাবার বাড়িতে আশ্রয় নেন। তারপর ইসলামিক রিলিফ সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয়। ইসলামিক রিলিফ পাশে দাঁড়ানোর ফলে বন্ধ হয়ে যাওয়া সন্তানদের পড়াশোনা নিয়মিত করেন। ইমলামিক রিলিফ থেকে এককালীন ১৪ হাজার টাকা দিয়ে তিনি প্রথমে সেলাই মেশিন ক্রয় করেন। তারপর আয়ের টাকা দিয়ে সংসার চালান এবং পরবর্তীতে গাভী ক্রয় করেন। গাভীর দুধ বিক্রিতে আয়ের পথ সুগম হয়। বর্তমানে হাঁস মরগি পালন এবং টুপির ব্যবসা শুরু করেন। এছাড়াও ২ শতক ফসলী জমিও ক্রয় করেন। তিনি এখন ভালোভাবে সংসার চালাচ্ছেন।
নিজপাড়া গ্রামের মিনা রানী জানান, হৃদরোগে আক্রান্ত স্বামীর মৃত্যুতে তিনি দিশেহারা হয়ে পড়েন। পাড়া প্রতিবেশির সহায়তায় দুই সন্তানের পড়াশোনা ও ভরণপোষণ চালানোর সংগ্রাম ছিল নিত্যসঙ্গী। একপর্যায়ে ইসলাম রিলিফ থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণ শেষে এককালীন টাকা পেয়ে ২টি ছাগল ক্রয় করেন, অল্প দিনেই ১০টি ছাগল হয় এবং লালন পালন করে বিক্রি করেন। পরবতীতে লাভের অংশ দিয়ে টুপির কাজ শুরু করেন এবং ১টি গরু ক্রয় করেন। ব্যবসা বাড়ানোর পরিকল্পনায় ইসলামিক রিলিফ ও বিআরডিবি থেকে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন এবং সেলাই মেশিনও ক্রয় করেছেন। বড় ছেলে পিএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ পায়, পরিবারটি এখন স্বাবলম্বী।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আতিক আহমেদ বলেন, নারীর ক্ষমতায়ন ও নিজেদের স্বাবলম্বী করতে এই ধরণের কার্যক্রম সত্যিই প্রশংসনীয়। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মাধ্যমে সবজি চাষ, সেলাই প্রশিক্ষণ, ক্ষুদ্র ব্যবসা পরিচালনার জন্য উদ্যোক্তা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ দেয়া হয় এসব দরিদ্র নারীদের। এই কার্যক্রমকে আরো সম্প্রসারণ করা দরকার।
শহীদবাগ স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. তোফাজ্জল হোসেন বলেন, ইসলামিক রিলিফের সহায়তাপ্রাপ্ত অনেক এতিম শিশুই আমাদের প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করে। ওদের পড়াশোনা সন্তোষজনক। আগে কারো সাথে মিশত না কিন্তু ইসলামিক রিলিফের শিশু ক্লাবের সদস্য হওয়ার পর এরা নিয়মিত বিদ্যালয়ে আসে এবং ফলাফলও ভালো করছে।
সংস্থার রংপুর জেলা প্রকল্প ব্যবস্থাপক উদয়ন দেওয়ান জানান, কাউনিয়া উপজেলার অসহায় এতিম পরিবারকে স্বাবলম্বী ও শিশুদের শিক্ষা নিশ্চিতকরণে ৫টি ইউনিয়নে কাজ করছে। এসব পরিবারের টেকসই উন্নয়নে ৩৭টি স্বাবলম্বী দল গঠন করা হয়েছে, যারা সংঘবদ্ধভাবে কাজ করছে এবং ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশের সহায়তায় আয়বৃদ্ধিমূলক কাজে সম্পৃক্ত থেকে পরিবারের উন্নয়নে ভ’মিকা রাখছে।

ইসলামিক রিলিফের প্রকল্প সমন্বয়কারী গোলাম মোস্তফা জানান, বর্তমানে রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় প্রায় ৭ হাজার এতিম শিশু ও তাদের পরিবারের সার্বিক উন্নয়নে সহায়তা করছে। এরই অংশ হিসেবে রংপুরের কাউনিয়ায় এই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে। গত ৫ বছরে কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট ও রংপুর জেলার ১৭৯০ এতিম শিশুর পরিবারকে স্বাবলম্বী করেছে ইসলামিক রিলিফ। এসব পরিবারের এতিম শিশুদের প্রাতিষ্ঠানিক ও কারিগরি শিক্ষা নিশ্চিতকরণে নানাবিধ সহায়তা প্রদান করেছে।
সংস্থার এডভোকেসি ও যোগাযোগ সমন্বয়কারী সফিউল আযম বলেন, যুক্তরাজ্যভিত্তিক আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশে ১৯৯১ সাল থেকে কাজ করছে। এতিম শিশুদের সুরক্ষা ও মর্যাদা বৃদ্ধিকল্পে আমরা কাজ করছি। ইসলামিক রিলিফ চায়, এসব এতিম পরিবার স্বাবলম্বী হবে এবং এতিম শিশুরা যাতে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে পারে এবং মতামত প্রদান ও নেতৃত্ব বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভ’মিকা রাখতে পারে।

সরেজমিন দেখা যায়, সংস্থার এই প্রকল্প কর্তৃক কাউনিয়া উপজেলার ৫টি ইউনিয়েনের প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে ৪৫ শিশু ক্লাব গঠন করা হয়েছে। তকিপল বাজার শিশু ক্লাবের সম্পাদক আতিক আরমান সিয়াম জানান, ইসলামিক রিলিফ কর্তক শিশুক্লাব গঠনের ফলে পড়াশোনার মান উন্নয়ন হয়েছে। ইসলামিক রিলিফ কর্তক বিভিন্ন বই ও খেলাধুলা সামগ্রী দেয়ার ফলে শিশুরা পড়াশোনার পাশাপাশি খেলাধুলায় মনোনিবেশ করছে। শিশুরা নিজেদের অধিকার সম্পর্কে সচেতন হচ্ছে, শারিরীক ও মানসিক বিকাশে নিয়মিত খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড এবং সমাজ সচেতনতামূলক কাজ যেমন শিশু নির্যাতন, বাল্য বিয়ে, ইভটিজিং, যৌতুক প্রতিরোধসহ বিভিন্ন কাজে অগ্রণী ভ’মিকা রাখছে।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না।