মানব সেবার অনন্য দৃষ্টান্ত সাংসদ ওমর ফারুক চৌধুরী

0 19

মনিরুজ্জামান মনি তানোর: উত্তরাঞ্চলের শ্রেষ্ঠ করোনা যোদ্ধা রাজশাহী ১তানোর গোদাগাড়ীর সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ রাজশাহী জেলা শাখার সাবেক সভাপতি বর্তমান জেলা আওয়ামীলীগের কার্য নির্বাহী সদস্য আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী প্রশংসায় ভাসছেন তানোর-গোদাগাড়ীর মানুষের।
প্রানঘাতি করোনা ভাইরাসের বিস্তৃতি রোধে দেশজুড়ে লকডাউন ও হোমকোরারেন্টিন শুরু হলে তিনি ছুটে আসেক তার নির্বাচনী এলাকায়।সেই থেকে এলাকায় অবস্থান নিয়ে রাতদিন একাকার করে, তিনি ব্যাক্তিগতভাবে ও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে দুই উপজেলায় দেড়লক্ষ দরিদ্র মানুষর বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রয়োজনীয় খাদ্য পন্য সামগ্রীসহ নগদ অর্থ পৌঁছে দেন ।

এলাকার মানুষকে করোনা সম্পর্কে সচেতন করতে দেন নানান দিক নির্দেশনা ।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় ত্রানসামগ্রী সঠিকভাবে বন্টনের জন্য দুই উপজেলার চেয়ারম্যান,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্ত,ওসি,পৌর মেয়র,ইউপি চেয়ারম্যান ,আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ,সাংবাদিক সহ সংশিষ্ট সবাইকে নিয়ে সমন্বিতভাবে তালিকা প্রনয়ন করে তিনি তাদেরকে সঙ্গে নিয়ে নিজ হাতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্য সামগ্রা পৌঁছে দেন । তানোর-গোদাগাড়ীর এমন কোন দরিদ্র পরিবার নেই ,সে পরিবারে তিনি নিজে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেননি ।তিনি করোনার শুরুতে ঘোষনা দিয়েছিলেন তার এলাকায় কাউকে না খেয়ে অভুক্ত থাকতে হবে না ।তিনি তার কথা শতভাগ রেখেছেন ।এ দুই এলাকায় ইমাম,মুয়াজ্জেমসহ প্রত্যেকটি শ্রেনীপেশার মানুষ পর্যাপ্ত ত্রান পেয়েছে।এমনকি প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে শিশুদের মাঝে গুড়ো দুধ বিতরন করা হয়।এছাড়া বস্তার বস্তা মাস্ক,সাবান,হ্যান্ড স্যানিজেটর,পিপিইসহ স্ব্যাস্থ সুরক্ষা সামগ্রী বিতরন করা হয়।

শুধু ত্রান নয় এ মহাদূর্যোগের সময় স্থানীয় সাংসদকে প্রতি মূহুর্তে কাছে পেয়ে এলাকাবাসী উৎফুল্ল ও অনুপ্রানিত ।অনেকেই মন্তব্য করেছেন তিনি শুধু সংসদ সদস্যই নন,সবার কাছে তিনি একজন মানবতার ফেরিওয়ালা।প্রানঘাতি করোনার বিপদসংকুল মূহুর্তে মৃত্যুকে পরোয়া না করে ভয়কে জয় করে এলাকাবাসীর পাশে সার্বক্ষনিক থেকে তাদের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার পাশাপাশি করোনা জয়ে শক্তি ও সাহস যুগিয়ে রাজনীতিতে তৃনমুল থেকে শীর্ষ পর্যায়ে উঠে আসা এ সংসদ সদস্য প্রমান করলেন তিনিই সত্যিকার অর্থেই খাঁটি দেশ প্রেমিক , মাটি ও মানুষের নেতা ।

এ বিষয়ে তানোর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও তানোর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ,সাবেক কলমা ইউনিয়ন পরিষদের দুই দুই বারের চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না বলেন , উত্তরাঞ্চলের শ্রেষ্ঠ করোনা যোদ্ধা হচ্ছেন রাজশাহী ১তানোর গোদাগাড়ীর সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ রাজশাহী জেলা শাখার সাবেক সভাপতি বর্তমান জেলা আওয়ামীলীগের কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী।করোনার প্রাদুর্ভাব সময় প্রথম থেকে কোন সংসদ সদস্য নিরন্তর ছুটেছেন ,সংকটে থাকা এসব মানুষের মানুষের কাছে।কখনো ত্রান ,কখনো ইফতার ,কখনো ঈদের কাপড়,কখনো ঈদের বাজার আবার লজ্জায় বলতে পারছেনা সংকটের কথা তাকে বিকাশে নগদ অর্থ পৌঁছে দেন ।

আবার নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া মানুষদের জন্য করোনা তহবিল গঠন করেছেন,সেখান থেকে যার যতটুকু প্রয়োজন খাদ্য সামগ্রী বিতরন করছেন।মানবতার সেবায় সাংসদ ও আওয়ামীলীগ নেতার কার্যক্রম এর মধ্যেই সংগঠনের নেতা কর্মীদের বিপুলভাবে উজ্জীবিত করেছে।
করোনা ভাইরাসের সময় মানুষ যখন আতঙ্কগ্রস্ত সেই ভয়াল ও মহাবিপদের সময় যে কয়েকজন সাংসদ মাঠে ছিলেন তাদের মধ্যে সাংসদ ওমর ফারুক চৌধুরী অন্যতম ।তিনি নিজের ও পরিবারের মায়া ত্যাগ করে ছুটে বেড়িয়েছেন এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্ত ।
এ প্রসঙ্গে তিন তিন বারের সাংসদ সদস্য রাজশাহী -১তানোর গোদাগাড়ী ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ রাজশাহী জেলা শাখার সাবেক সভাপতি বর্তমান জেলা আওয়ামীলীগের কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবর রহমানের আমৃত্য দেশ ও মানুষের কল্যানে নিবেদিত প্রান হিসেবে কাজ করে গেছেন ।তার সুযোগ্য কন্যা মাদার অব হিউম্যানিটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও মহান সেই পিতার পদাঙ্ক অনুসরন করে দেশ ও জাতির ভাগ্যন্নয়নে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন ।

আমি তার সৈনিক হিসেবে এবং সেই আদর্শকে ধারন ও লালন করে আমৃত্য মানব সেবায় কাজ করে যাচ্ছি। জাতির এ সংকটে আমাদের মানবিকতার হাতটা বাড়িয়ে তাদের পাশে দাঁড়ানোটা জরুরি ।সংগঠন এবং আমার ব্যাক্তিগত উদ্যোগে তাদের জন্য কাজ করে যাচ্ছি।করোনার বিরুদ্ধে জয়ী না হওয়া পর্যন্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

Loading...