ভ্যাকসিন নিয়ে এবার সুখবর দিল রাশিয়া

0 15

করোনাভাইরাস ঠেকাতে রুশ উদ্ভাবিত টিকা পুরোপুরি প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন রাশিয়ার উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী রুশলান সালিকোভ। রাশিয়ার সামরিক বিশেষজ্ঞ দল এবং গ্যামেলিয়া রিসার্চ সেন্টারের যৌথ প্রচেষ্টায় এটি তৈরি করা হয়েছে। ফলে যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পর এবার প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের প্রতিকার নিয়ে সুখবর দিল রাশিয়া। এরইমধ্যে করোনার প্রতিষেধকের হিউম্যান ট্রায়ালের সফল প্রয়োগ করে গোটা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন রুশ বিজ্ঞানীরা। গত ১৮ জুন সেচনভ বিশ্ববিদ্যালয়ে এর প্রথম ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হয়। আর যার সাফল্য নিয়ে যথেষ্ট আশাবাদী রুশ সরকারও।

জানা গেছে, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী আগস্ট মাসের মাঝামাঝি সময়ে বাজারে চলে আসবে করোনার প্রতিষেধক। শুধু তাই নয়, চলতি বছরের মধ্যে নিজেদের দেশে পরীক্ষামূলকভাবে করোনার তিন কোটি ডোজ ভ্যাকসিন উৎপাদনের পরিকল্পনা নিয়েছে রাশিয়া। এছাড়াও পৃথিবীর অন্যান্য দেশে রফতানির জন্য আরো ১৭ কোটি করোনার টিকা আবিষ্কারের লক্ষ্যমাত্রা নেয়া হয়েছে। এদিকে চলতি সপ্তাহে রাশিয়ার সেচেনভ বিশ্ববিদ্যালয়ে করোনার হিউম্যান ট্রায়াল সম্পন্ন করা হয়েছে। মোট ৩৮ জন স্বেচ্ছাসেবকের ওপর গত একমাস ধরে এই পরীক্ষা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন রুশ গবেষকরা। জানা গেছে, তাদের তৈরি ভ্যাকসিন সম্পূর্ণ নিরাপদ এবং রোগ প্রতিরোধে সক্ষম। যদিও তা কতটা রোগ প্রতিরোধে কার্যকরী হবে সেই বিষয়ে এখনো স্পষ্ট করে কিছু জানাননি বিজ্ঞানীরা। এ বিষয়ে রাশিয়ান ডাইরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের প্রধান কিরিল ডিমিত্রিভ এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, আগামী আগস্ট মাসের মধ্যে কয়েক হাজার মানুষের ওপর করোনার তৃতীয় ধাপের ট্রায়াল শুরু করা হবে।

এই ট্রায়ালের ফলাফলের ভিত্তিতে আগস্ট মাসের মাঝামাঝিতে এই ভ্যাকসিন রাশিয়াতে এবং সেপ্টেম্বর মাসে বিশ্বের অন্যান্য দেশুগুলোতে প্রয়োগের অনুমতি পাবে বলে আশা করা যায়। ডিমিত্রিভ আরো জানিয়েছেন, বর্তমানে করোনা আক্রান্ত নয় এমন ১০০ জন মানুষের ওপর দ্বিতীয় ট্রায়াল চলছে। আগস্টের শুরুতেই এই দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা শেষ হবে। তারপর রাশিয়া এবং মধ্যপ্রাচ্যের আরো দুটি দেশে চলবে এর তৃতীয় ধাপের হিউম্যান ট্রায়াল।

Loading...