আল্লাহ’র সন্তুষ্টি আদায়ে সারাদেশে পশু কোরবানি

0 21

মহান আল্লাহর অপার অনুগ্রহ লাভের আশায় সারাদেশে উদযাপিত হচ্ছে মুসলমানদের বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা। দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা ত্যাগের মহিমায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ঈদের নামাজ শেষে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি আদায়ে পশু কোরবানি করছেন। শনিবার (০১ আগস্ট) সকাল থেকে পশু কোরবানি দিয়েছেন অনেকে। তবে কসাই না পাওয়ায় অনেকে কাল ঈদের দ্বিতীয় দিন পশু কোরবানি করবেন। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, ঈদের দিন সকালে পশু কোরবানি দিচ্ছেন অনেকে। কেউ কেউ নামাজ শেষে ফিরেই পশু কোরবানি করলেও অনেকে করেছেন কিছুটা বিলম্বে।
যাত্রাবাড়ির বাসিন্দা সামসুল আলম জানান, প্রতিবারের চেয়ে এবারের পরিস্থিতিটা কিছুটা ভিন্ন। আমরাও তাই ভিন্ন পরিস্থিতিতেই পশু কোরবানি করেছি। যারা পশু কোরবানির কাজ করছেন তাদের ক্ষেত্রেও আমরা যথেস্ট সতর্ক থাকছি। কোরবানির আগেই তাদের সুরক্ষার সকল ব্যবস্থা করেছি।

ওয়ারির বাসিন্দা হাজি মহিউদ্দিন আলম বলেন, আজ ত্যাগের মহিমায় পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপন করছি আমরা। পশু কোরবানির মাধ্যমে মনে পশুকেও কোরবানি করছি। তবে চলমান করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও বন্যার কারণে ঈদ আনন্দ নেই কারো মনেই। করোনা মহামারির মধ্যে প্রাকৃতিক দুর্যোগ বন্যায় বিপর্যস্ত জনজীবনে এসেছে খুশির ঈদ। আল্লাহর কাছে এখন সবচেয়ে বড় যেই প্রার্থনা তা হলো করোনা থেকে মুক্তি। আল্লাহ আমাদের সকল গুনাহ মাফ করে আমাদের করোনা থেকে মুক্তি দেবেন ইনশাআল্লাহ, সেই প্রত্যাশাই করছি।

উল্লেখ্য আজ (১০ জিলহজ) পবিত্র ঈদুল আজহা। মুসলিম জাহানের জন্য খুশির বার্তা নিয়ে বছর ঘুরে আবারও ফিরে এসেছে ত্যাগের মহিমায় ভাস্বর পবিত্র ঈদুল আজহা। মুসলমানদের এই অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসবে দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা ত্যাগের মহিমায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ঈদের নামাজ শেষে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি আদায়ে পশু কোরবানি দেবেন। বিশ্বের মুসলিমরা ১০ জিলহজ পশু কোরবানি করে থাকেন। তবে ১১ ও ১২ জিলহজও পশু কোরবানি করার বিধান রয়েছে।

Loading...